শিরোনাম
প্রকাশ : ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৮:০১
আপডেট : ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ১০:৫৫
প্রিন্ট করুন printer

জেনারেল সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নেওয়া হবেই: ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

অনলাইন ডেস্ক

জেনারেল সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নেওয়া হবেই: ইরানের সর্বোচ্চ নেতা
আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন,   ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নেওয়া হবে।  হত্যার নির্দেশদাতা ও এর সঙ্গে জড়িতদের বিচার করা হবে।

বুধবার শহীদ জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও আবু মাহদি আল মুহানদিসের পরিবারের সদস্যরা সর্বোচ্চ নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন। সর্বোচ্চ নেতার সঙ্গে এই বৈঠকে কাসেম সোলাইমানির কয়েকজন সহযোদ্ধা এবং মৃত্যুবার্ষিকী উদযাপন কমিটির সদস্যরাও যোগ দিয়েছিলেন। সোলাইমানির মৃত্যুর প্রথম বার্ষিকীকে সামনে রেখে এ বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, কাসেম সোলাইমানি হচ্ছেন জাতীয় বীর, তিনি শুধু ইরান নয় গোটা মুসলিম উম্মাহর মহান বীর। আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, সোলাইমানি ছিলেন সাহসী, প্রতিরোধী, বিজ্ঞ, আত্মত্যাগী এবং মানবপ্রেমী। তার মাঝে ছিল আধ্যাত্মিকতা ও আল্লাহর প্রতি আনুগত্য। কিন্তু তিনি কখনওই অন্যকে দেখানোর জন্য বা প্রদর্শনের জন্য কিছু করতেন না।

তিনি বলেন, জীবিত ও মৃত উভয় অবস্থায় সোলাইমানি সাম্রাজ্যবাদীদের জন্য পরাজয় ডেকে এনেছে। ইরাক ও ইরানে সোলাইমানি ও মুহানদিসের শোকানুষ্ঠানে লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতি সাম্রাজ্যবাদীদের নরম যুদ্ধের জেনারেলদেরকে হতভম্ব করে দিয়েছে।

সর্বোচ্চ নেতা বলেন, এটি ছিল আমেরিকার গালে চরম চপেটাঘাত। এরপর ইরাকে মার্কিন ঘাঁটি আইন আল আসাদে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার মাধ্যমে আরেকটি চপেটাঘাত করেছে ইরান। এর চেয়েও বড় চপেটাঘাত হচ্ছে সফটওয়্যারের মাধ্যমে সাম্রাজ্যবাদীদের ফাঁকা অহংকার চুরমার করে দেওয়া। এ জন্য বিপ্লবী তরুণ সমাজ ও মুমিন প্রতিভাবানদের উদ্যোগ ও সাহসিকতা প্রয়োজন। এই শক্ত চপেটাঘাতের আরেকটি অংশ হল এই অঞ্চল থেকে মার্কিনীদের বিতাড়িত করা। এ জন্য বিভিন্ন জাতির সাহসিকতা এবং প্রতিরোধমূলক নীতি প্রয়োজন। 

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর