শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৯:৫২
প্রিন্ট করুন printer

৪ খুনিসহ ১৫ দণ্ডিত অপরাধীকে ক্ষমতাবলে ক্ষমা করলেন ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক

৪ খুনিসহ ১৫ দণ্ডিত অপরাধীকে ক্ষমতাবলে ক্ষমা করলেন ট্রাম্প

ইরাকে শিশুসহ বহু মানুষকে হত্যার দায়ে দণ্ডিত চার অপরাধীসহ ১৫ জনকে নিজের ক্ষমতাবলে সম্পূর্ণ ক্ষমা করে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এদের মধ্যে রয়েছে ২০০৭ সালে বাগদাদে বেসামরিক মানুষ হত্যায় দণ্ড পাওয়া চার মার্কিন সামরিক কর্মকর্তা।

এরা তখন ব্ল্যাক ওয়াটার নামক নিরাপত্তা সংস্থার কন্ট্রাক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময় ইরাকিদের হত্যা করেছেন। এছাড়া রয়েছে মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ তদন্তে অভিযুক্ত হওয়া ট্রাম্পের সাবেক প্রচার সহযোগী জর্জ পাপাডোপোলাস। দুই সাবেক রিপাবলিকান আইনপ্রণেতাও ক্ষমা পেয়েছেন। এমনকি রাশিয়ার ধনকুবের গেরমান খানের ডাচ জামাতা অ্যালেক্স ভ্যান ডান জয়ানকেও ক্ষমা করে দিয়েছেন বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গত নির্বাচনে পরাজিত হওয়ায় হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের দিন ঘনিয়ে এসেছে। নিয়ম অনুযায়ী, আগামী ২০ জানুয়ারি নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের শপথ নেওয়ার কথা রয়েছে। এরইমধ্যে গত মাসে  সাবেক জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মাইকেল ফ্লিনকে ক্ষমা ঘোষণা করেন ট্রাম্প।

২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের তদন্তে এফবিআইকে মিথ্যা বলার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত হয়েছিলেন মাইকেল ফ্লিন। ২০১৭ সালে নিজের অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছিলেন ট্রাম্পের সাবেক এই ঘনিষ্ঠ সহযোগী।

মঙ্গলবার ট্রাম্পের ক্ষমাপ্রাপ্তদের মধ্যে বেশ কয়েকজন রয়েছেন, যারা মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ তদন্তের ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। জর্জ পাপাডোপোলাস ২০১৬ সালে ট্রাম্পের প্রচার উপদেষ্টা ছিলেন। ২০১৭ সালে তিনি এফবিআই এজেন্টকে মিথ্যা বলায় দোষী সাব্যস্ত হন। এছাড়া রাশিয়ান ধনকুবেরের জামাতাও মিথ্যা বলায় জরিমানা এবং কারাদণ্ডের মুখোমুখি হন।

ট্রাম্পের ক্ষমাপ্রাপ্তদের মধ্যে বাগদাদে বেসামরিক মানুষ হত্যায় দীর্ঘ মেয়াদে দণ্ড পাওয়া চার নিরাপত্তা কন্ট্রাক্টর রয়েছেন যারা নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ইরাকিদের হত্যার দায়ে দণ্ডিত হয়েছিলেন। ২০০৭ সালে ওই চার ব্যক্তি মার্কিন দূতাবাসকর্মীদের গাড়িবহর প্রহরা দিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় জমায়েত হওয়া নিরস্ত্র ইরাকি মানুষের ওপর গুলি চালায়। ওই ঘটনায় দুই শিশুসহ অন্তত ১৪ জন নিহত হয়।

এ ঘটনায় আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তুমুল সমালোচনার জন্ম দিলে ২০১৪ সালে চার জনকে বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ডিত করা হয়। এরপরও তাদের ক্ষমা করলেন ট্রাম্প। মার্কিন বাহিনী ইরাক ও আফগানিস্তানে হাজার হাজার বেসামরিক মানুষকে হত্যা করেছে। কিন্তু এসব হত্যাকাণ্ডের কোনো বিচার করা হয়নি।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর