শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:৫২
প্রিন্ট করুন printer

অবশেষে নমনীয় আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে পড়া ইরানি অর্থ আংশিক ছাড়ে সম্মতি

অনলাইন ডেস্ক

অবশেষে নমনীয় আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে পড়া ইরানি অর্থ আংশিক ছাড়ে সম্মতি

দীর্ঘ উত্তেজনার পর ইরানের ব্যাপারে অবশেষে নমনীয় হতে শুরু করল আমেরিকা। দক্ষিণ কোরিয়ায় আটকে পড়া  ইরানের ৭০০ কোটি ডলারের অংশবিশেষ ছাড়ের বিষয়ে সম্মত হয়েছে জো বাইডেন প্রশাসন।

পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গিয়ে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিলেন তার আওতায় ইরানের এ বিপুল পরিমাণ অর্থ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যাংকগুলোতে আটকা পড়ে।

দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন সরকারি কর্মকর্তার বরাত দিয়ে রাষ্ট্র পরিচালিত রেডিও কেবিএস ওয়ার্ল্ড বৃহস্পতিবার এ খবর দিয়েছে। 

২০১৮ সালে ইরানের ওপর নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগ পর্যন্ত দক্ষিণ কোরিয়া ছিল ইরানের জ্বালানি তেলের অন্যতম প্রধান ক্রেতা। আমেরিকা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর দক্ষিণ কোরিয়া ইরানি তেলের মূল্য পরিশোধ করতে পারেনি। ফলে গত কয়েক বছর ধরে ইরানের বিপুল পরিমাণ অর্থ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যাংকগুলোতে আটকা পড়ে  রয়েছে। 

অর্থ ছাড়ের ব্যাপারে দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা বলেছেন, সিউল এবং ওয়াশিংটনের মধ্যে বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তিনি বলেন, কোন পদ্ধতিতে ইরানকে অর্থ পরিশোধ করা যায় তা নিয়ে ওয়াশিংটনের সাথে আলোচনা চলছে এবং সম্ভবত প্রথমে ইরানের অর্থ সুইজারল্যান্ডের কাছে পাঠানো হবে। 

এর আগে অন্য খবরে বলা হয়েছিল- দক্ষিণ কোরিয়া এবং আমেরিকা ইরানের অর্থ পাঠানোর বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছে। তারা দু’পক্ষ ইউরোপের এ দেশটিতে কথিত সুইচ হিউম্যানিটেরিয়ান ট্রেড এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে ওই অর্থ পাঠাবে। 

ইরান এবং আমেরিকার মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক না থাকার কারণে ইরানে আমেরিকার স্বার্থ দেখাশুনা করে সুইজারল্যান্ড। মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইরানে জরুরি পণ্য পাঠানোর লক্ষ্য নিয়ে গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে সুইজারল্যান্ড হিউম্যানিটেরিয়ান ট্রেড এগ্রিমেন্ট নামে একটি পদ্ধতি চালু করে। সূত্র: প্রেস টিভি

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর