Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:৪৪

ইরাকের ধর্মীয় নেতারা অল্পবয়সী মেয়েদের অস্থায়ী বিয়ের নামে ঠেলে দিচ্ছেন দেহব্যবসায়

বিবিসির অনুসন্ধান

ইরাকের ধর্মীয় নেতারা অল্পবয়সী মেয়েদের অস্থায়ী বিয়ের নামে ঠেলে দিচ্ছেন দেহব্যবসায়

ইরাকের ধর্মীয় নেতারা অল্পবয়সী মেয়েদের দেহ-ব্যবসার দিকে ঠেলে দিচ্ছেন, বিবিসি আরবি   নিউজ শিয়া সম্প্রদায়ের ‘অস্থায়ী বিয়ে’ প্রথার   ওপর অনুসন্ধান চালাতে গিয়ে এমন তথ্য পায়- যেখানে মেয়েদের সাময়িক সময়ের জন্য উপভোগ করতে বিয়ে দেওয়া হয়।

ইরাকের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মাজারের আশপাশে ধর্মীয় নেতাদের দ্বারা পরিচালিত কাজী অফিসগুলোয় গোপন অনুসন্ধানে দেখা গেছে,  বেশিরভাগ ধর্মীয়নেতা স্বেচ্ছায় খুব স্বল্প সময়ের জন্য মাঝে মাঝে এক ঘণ্টার জন্য ‘উপভোগের জন্য বিয়ে’ দিয়ে থাকে যেন যৌনমিলনকে বৈধতা দেওয়া যায়। কেউ কেউ ৯ বছরের কম বয়সী মেয়েদেরও এ অস্থায়ী বিয়ের জন্য স্বেচ্ছায় সরবরাহ করেছে। তারা এ উপভোগের বিয়ের জন্য কনে হিসেবে নারী, এমনকি এবং অল্প বয়সী মেয়েদের সরবরাহ করার প্রস্তাবও দিয়েছিল। প্রামাণ্যচিত্রে বলা হয়েছেÑ ধর্মীয় নেতারা   শিশুদের যৌন নির্যাতনকে আশীর্বাদ জানানোর মাধ্যমে দালাল হিসেবে কাজ করছে।

উপভোগের জন্য বিবাহ- নিকাহ মুতআহ - একটি বিতর্কিত ধর্মীয় রীতি যা শিয়া মুসলমানরা অস্থায়ী বিয়ের জন্য ব্যবহার করে। এর বিপরীতে নারীদের অর্থ প্রদান করা হয়। এ অনুশীলনটি মুসলমান পন্ডিতদের মধ্যে বিভক্তির সৃষ্টি করেছে।

১৫ বছরের যুদ্ধের পরে, আনুমানিক ১০ লাখ ইরাকি নারী বিধবা হয়ে পড়েন এবং আরও অনেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে যান বলে ধারণা করা হয়। বিবিসির দল জানতে পেরেছে দারিদ্র্যের কারণে অনেক নারী এবং মেয়েরা এ অস্থায়ী আনন্দ বিবাহ প্রথায় প্রবেশ করছে। বিবিসির প্রতিবেদক একজন ভুক্তভোগী মেয়ের সাক্ষ্য শুনেছিলেন যিনি  অভিযোগ করেছেন যে তাকে একজন ধর্মীয়নেতা এমন কাজের দিকে ঠেলে দিয়েছিলেন।


আপনার মন্তব্য