শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ মে, ২০১৮ ২২:৫৫

শাহবাগে শত শত লোকের সামনে যুবক খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক

শাহবাগে শত শত লোকের সামনে যুবক খুন

রাজধানীর ব্যস্ততম শাহবাগ মোড়। দুই পাশে নামকরা দুটি হাসপাতাল। পথচারীদের রাস্তা পারাপারে রয়েছে দুটি ফুটওভার ব্রিজ। দিন-রাত ব্যস্ত থাকে এই ব্রিজ। বিশেষ করে সকালের দিকে শত শত মানুষ ব্রিজ দিয়ে রাস্তা পার হন। গতকালও মানুষের আনাগোনায় মুখর ছিল ফুটওভার ব্রিজ। সেখানে নানা পণ্যের পসরা সাজান হকাররা। প্রতিদিনের মতো গতকালও  বারডেম হাসপাতালের সামনের ফুটওভার ব্রিজে কসমেটিক্স দোকান সাজান হকার নুরুন্নবী মজুমদার (২৩)। চলছে বেচাকেনা। চলছে পথচারীরাও। এরই মধ্যে সকাল ৯টার দিকে খায়রুল আলম (৪২) নামে এক দুর্বৃত্ত নুরুন্নবীর দোকানে আসেন। তিনি দোকান থেকে একটি ছুরি হাতে নিয়ে দেখতে থাকেন। তাকে দেখে নেশাগ্রস্ত ও অস্বাভাবিক মনে হওয়ায় নুরুন্নবী তাকে ছুরি রেখে চলে যেতে বলেন। এ নিয়ে দুজনের বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে খায়রুল ওই ছুরি দিয়েই নুরুন্নবীর গলায় আঘাত করেন। সব কিছু যেন থমকে যায়। দ্রুত মানুষগুলো সটকে পড়তে থাকে। নিমিষেই নীরব হয়ে ওঠে ব্যস্ততম ফুটওভার ব্রিজ। নুরুন্নবীকে উদ্ধার করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে, দুর্বৃত্ত খায়রুল ছুরিকাঘাতের পর পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে ট্রাফিক সার্জেন্ট শিহাব মামুন তাকে ধরে ফেলেন। কিন্তু জনতা খায়রুলকে কেড়ে নিয়ে গণধোলাই দেয়। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের ভাই শাহ পরান বলেন, তাদের গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে। বাবার নাম মোস্তফা মিয়া। তারা দুই ভাই চকবাজার উর্দু রোডে থাকতেন। তিন বছর ধরে দুই ভাই ব্রিজের ওপরে কসমেটিক্সের ব্যবসা করেন।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মাইনুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় নিহতের ভাই শাহ পরান বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। ওই মামলায় খায়রুলকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

close