প্রকাশ : রবিবার, ১৯ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মে, ২০১৯ ২৩:০১

সাগরপথে চলছেই রোহিঙ্গা পাচার

৮৪ জন উদ্ধার, আটক ৫ পাচারকারী

কক্সবাজার প্রতিনিধি

সাগরপথে চলছেই রোহিঙ্গা পাচার

অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া পাচারের সময় ৮৪ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড ও পুলিশ। এ সময় মানব পাচারকারী দলের পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। সেন্টমার্টিন দ্বীপের দক্ষিণ সৈকত এলাকা ও পেকুয়া উপজেলার উজানটিয়া করিমদাদ মিয়া ঘাট থেকে গতকাল গভীর রাতে এই রোহিঙ্গাদের উদ্ধার ও পাচারকারীদের আটক করা হয়। কোস্টগার্ডের টেকনাফ স্টেশনের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এম ফয়জুল ইসলাম ম ল জানান, একটি মানব পাচারকারী চক্র অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় কিছু লোক পাচার করছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেন্টমার্টিনের দক্ষিণ বিচ এলাকায় অভিযান চালিয়ে পাঁচ মানব পাচারকারীকে আটক এবং ১৭ জন রোহিঙ্গা সদস্যকে উদ্ধার করা হয়। তাদের মধ্যে শিশুসহ ১০ জন পুরুষ ও সাতজন নারী রয়েছেন। সবাইকে টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাস জানান, পাচারকারীদের বিরুদ্ধে মামলা হবে। রোহিঙ্গা সদস্যদের আদালতে উপস্থিত করে তাদের নিজ নিজ ক্যাম্পে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

এ ছাড়া অন্য ৬৭ জনকে আটক করা হয়েছে পেকুয়ার উজানটিয়া করিমদাদ মিয়াঘাট থেকে। পেকুয়া থানার ওসি জাকির হোসেন ভূঁইয়া বলেন, সাগরপথে মালয়েশিয়া পাচারের জন্য পেকুয়ার উজানটিয়া করিমদাদ মিয়া ঘাটে কিছু লোকজনকে জড়ো করা হয়েছে বলে খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল সেখানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পাচারকারী দলের সদস্যরা পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল থেকে ৬৭ জন রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করা হয়। তাদের মধ্যে ২১ জন পুরুষ, ৩১ জন নারী ও ১৫ জন শিশু রয়েছে। ওই রোহিঙ্গাদের জিজ্ঞাসাবাদের তথ্য দিয়ে তিনি বলেন, তারা সাগরপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য জড়ো হয়েছে বলে স্বীকার করেছে। তারা পাচারকাজে জড়িত বাংলাদেশি চার দালালের নামও পুলিশের কাছে প্রকাশ করে। দালালরা হলো পেকুয়ার বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ টিটু, আবদুল গনি, মোহাম্মদ মনসুর ও মোহাম্মদ মেজবাহ।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর