শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ এপ্রিল, ২০২০ ০০:২০

সাংবাদিক আরিফুল নির্যাতন

সেই ডিসিসহ চার জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা রেকর্ড

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

সাংবাদিক আরিফুল ইসলামকে নির্যাতনের ঘটনায় অবশেষে হাই কোর্টের নির্দেশে কুড়িগ্রামের সাবেক ডিসিসহ চারজন ও অজ্ঞাত ৪০ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় দায়ের করা এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। আরিফুল গত ১৯ মার্চ কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার প্রতিনিধির মাধ্যমে কুড়িগ্রাম সদর থানায় এজাহারটি জমা দেন। গত মঙ্গলবার রাতে মামলাটি রেকর্ড করা হয়। মামলার আসামিরা হলেন-কুড়িগ্রামের সাবেক ডিসি সুলতানা পারভীন, আরডিসি নাজিম উদ্দিন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রিন্টু বিকাশ চাকমা ও এস এম রাহাতুল ইসলাম ও অজ্ঞাতনামা ৩৫-৪০ জন সরকারি কর্মচারী। গত ১৩ মার্চ মধ্যরাতে আরিফুলকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে তুলে নিয়ে হত্যার উদ্দেশে এনকাউন্টারে দেওয়ার জন্য কুড়িগ্রাম ধরলা সেতুর ওপর নিয়ে যাওয়ার পর ডিসির নির্দেশে ফিরিয়ে এনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চোখ বেঁধে বেধড়ক মারধরসহ জেল ও জরিমানা করা হয়। এ ঘটনায় হাই কোর্ট সাবেক ডিসি সুলতানা পারভীনসহ আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যার উদ্দেশে অপহরণ ও বর্বর নির্যাতনের অভিযোগে দাখিল করা এজাহারটি রেকর্ড করার নির্দেশ দেন। এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি মাহফুজার রহমান জানান, হাই কোর্টের আদেশের কপি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এজাহারটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. রাজু সরকার (ওসি-তদন্ত) জানান, সাংবাদিক আরিফুল ইসলামের মামলাটি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। পুলিশ সুপার ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে আসামিদের সম্মানের কথা বিবেচনায় নিয়ে তদন্ত অব্যাহত রাখা হচ্ছে। এ ব্যাপারে সাংবাদিক আরিফুল ইসলাম বলেন, আদালতের প্রতি আমার আস্থা ও বিশ্বাস আছে। আমি আদালতে ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেছিলাম, সরকার ও আদালত আমার ন্যায়বিচার প্রাপ্তিতে যথেষ্ট সচেষ্ট। তারই অংশ হিসেবে এই মামলা রেকর্ড করা হলো। এখন অপরাধীদের বিচারের মুখোমুখি করে দৃষ্টান্তমূলক শান্তি নিশ্চিত করা প্রয়োজন এই জন্য যে, যেন সমাজে এটি একটি নজির হয়ে থাকে।


আপনার মন্তব্য