শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:৩৪

কুমিল্লায় দুই হত্যায় কাউন্সিলর কারাগারে

অন্যদের গ্রেফতার দাবি

কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লায় যুবলীগ কর্মী ও ব্যবসায়ী হত্যার পৃথক ঘটনায় তিন কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এর মধ্যে যুবলীগ কর্মী জিলানী হত্যা মামলায় মঙ্গলবার ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুস সাত্তারকে গ্রেফতার করেছে তদন্ত সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গতকাল আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তবে এখনো অধরা দুই কাউন্সিলর আলমগীর  হোসেন ও মো. আবুল হাসানকে  দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে নিহতদের পরিবার। মামলা সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ১১ নভেম্বর কুমিল্লা নগরীর চৌয়ারা এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করা হয় যুবলীগ কর্মী জিল্লুর রহমান চৌধুরী ওরফে গোলাম জিলানীকে। এ ঘটনায় নগরীর ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবুল হাসান ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুস সাত্তারসহ ৩৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। মামলার বাদী ইমরান হোসেন চৌধুরী প্রধান আসামি কাউন্সিলর মো. আবুল হাসানসহ অন্যদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন। এদিকে গত বছরের ১০ জুলাই নগরীর চাঙ্গিনিতে মসজিদ থেকে টেনেহিঁচড়ে এনে শত শত মানুষের সামনে ব্যবসায়ী আক্তার হোসেনকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় কাউন্সিলর আলমগীরসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন নিহত আক্তারের স্ত্রী রেখা বেগম। আক্তার হোসেনের ছোটভাই স্থানীয় যুবলীগ নেতা শাহজালাল আলাল অভিযোগ করে বলেন, ‘ছয় মাস পার হলেও মামলার প্রধান আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। তিনি নাকি সম্প্রতি জামিন নিয়েছেন। ইদানীং তিনি এলাকায় এসে আমাদের দেখে নেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন।’ জিলানী হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পরিদর্শক বিপুল চন্দ্র দেবনাথ বলেন, গ্রেফতার কাউন্সিলর সাত্তারকে যুবলীগ কর্মী জিলানী ও ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে গতকাল আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ব্যবসায়ী আক্তার হোসেন হত্যার মামলার আসামিদের গ্রেফতারের বিষয়ে সদর দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, আক্তার হোসেন হত্যা মামলায় কাউন্সিলর আলমগীর হোসেনসহ কয়েকজন জামিনে রয়েছেন বলে জেনেছি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর