শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ জুন, ২০২১ ২৩:৫০

৮০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুট, দেড় বছর পর ডাকাত শনাক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

প্রায় দেড় বছর পর গাজীপুর শ্রীপুরে জুয়েলারি দোকান থেকে ৮০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুটের ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গত ১৯ মে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা পঞ্চবটি থেকে ডাকাত চক্রের একজনকে গ্রেফতার করেছে সংস্থাটি। তার নাম- রিপন। ডাকাতিতে যে হাইস মাইক্রোবাস ব্যবহার করা হতো সেটিও জব্দ করা হয়েছে। ২০১৯ সালের ১৫ ডিসেম্বর  শ্রীপুরের জৈনা বাজারের গফুর সুপার মার্কেটে নিউ দিপা জুয়েলার্সের সামনে রাত সাড়ে ৭টায় বিকট শব্দে ককটেল বিস্ফোরণ হয়। এ সময় সেখানে থাকা লোকজন আতঙ্কে দিগি¦দিক ছুটোছুটি শুরু করে। এ সময় চলে লুটপাট। সিআইডি সূত্র জানায়, ওই ককটেল বিস্ফোরণের পরই ১০/১২ জন লোক দিপা জুয়েলার্সে ঢুকে দোকান মালিককে পিস্তল ও চাপাতি দিয়ে আঘাত করে। এরপর দোকানের শোকেসের গ্লাস ভেঙে ৫৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ২০০ ভরি রুপা, নগদ ৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এরপর পাশের লক্ষ্মী জুয়েলার্স নামে আরেকটি দোকানে লুটপাট চালায়। সেখানে ২৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ৩০০ ভরি রুপা এবং নগদ ৩৫ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। দীর্ঘ তদন্তের পর সিআইডি ওই ডাকাতিতে জড়িত রিপনকে চিহ্নিত করে। তিনি ওই ডাকাতিতে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসের চালক ছিলেন।  মামলাল তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মিজানুর রহমান জানান, রিপন ডাকাতিতে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। তার নিজের ভাড়ায় চালিত মাইক্রোবাসটি ডাকাতি কাজে ব্যবহার করা হতো। শ্রীপুরে ডাকাতির আগে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে ডাকাত দলের সদস্যদের গাড়িতে তোলে রিপন। এরপর ডাকাতি শেষে যার যার জায়গায় নামিয়ে দেয়। এ ছাড়া ডাকাতি দলের অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।