শিরোনাম
সোমবার, ২২ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

সময় ভালো, সরকারের গাইডলাইন প্রয়োজন

-কাজী ওয়াহেদুল আলম

সময় ভালো, সরকারের গাইডলাইন প্রয়োজন

বিদেশি পর্যটক টানতে বাংলাদেশের এখন সবচেয়ে ভালো সুযোগ থাকলেও এই লক্ষ্যে সরকারের কোনো গাইডলাইন নেই বলে মনে করেন পর্যটন খাতের অভিজ্ঞ বিশ্লেষক ও ভ্রমণবিষয়ক ইংরেজি মাসিক পত্রিকা দ্য মনিটর সম্পাদক কাজী ওয়াহেদুল আলম। তিনি বলেন, বিদেশি পর্যটক টানার এটা সঠিক সময়। ইউরোপ-আমেরিকায় কিন্তু এখন পর্যটক যাচ্ছেন না। এ পর্যটকরা বাংলাদেশে আসতে পারেন। কিন্তু এখন সময় ভালো হলেও বাংলাদেশের পর্যটন খাত নিয়ে কোনো মার্কেটিং নেই। বিদেশি পর্যটকদের বাংলাদেশে আনার জন্য সরকারি যে ঘোষণা প্রয়োজন, তাও দেয়নি সরকার। এককথায় বিদেশি পর্যটকদের কাছে সরকারের আনুষ্ঠানিক বার্তা পৌঁছাতে হবে। এ জন্য প্রয়োজন প্রচার-প্রচারণা।

গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন পর্যটন খাতের অভিজ্ঞ বিশ্লেষক ও ভ্রমণবিষয়ক ইংরেজি মাসিক পত্রিকা দ্য মনিটর সম্পাদক কাজী ওয়াহেদুল আলম। তিনি বলেন, করোনাকালে অপ্রত্যাশিতভাবে ভালো যাচ্ছে অভ্যন্তরীণ পর্যটন খাত। অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচলও শুরু হওয়ায় পর্যটক বেড়েছে। রাঙামাটি, বান্দরবান ও কক্সবাজারে পর্যটকদের ঢল নেমেছে। আগের চেয়ে বড় বড় উড়োজাহাজ দিয়ে অভ্যন্তরীণ রুটে যাত্রী যাতায়াত করছে। এটা কেউ আশা করেনি। এই চাহিদা কাজে লাগিয়ে পর্যটনের নতুন নতুন স্থান উন্নয়ন করতে হবে, যেখানে পর্যটকদের আগ্রহ রয়েছে। অভ্যন্তরীণ পর্যটক বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গেই বাড়বে বিদেশি পর্যটক। মহামারী করোনায় পর্যটনশিল্পে যে সংকট তৈরি হয়েছিল, তার ৮০ শতাংশ উত্তরণ ঘটেছে। এটা অপ্রত্যাশিত উন্নতি। এত দিন যারা বিদেশে যেতেন, তারাও দেশে ঘুরতে বের হয়েছেন। পর্যটন খাতে কিছুটা নতুনত্ব আসছে। সব মিলিয়ে আবারও গতি ফিরে পাচ্ছে স্থানীয় পর্যটনশিল্প।

তার মতে, করোনাভাইরাসের প্রভাবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পর্যটনশিল্প। এই ভাইরাসের কারণে আউটবাউন্ড, ইনবাউন্ড ও অভ্যন্তরীণ পর্যটনের শতভাগ বুকিং বাতিল হয়েছে। এ কারণে শুধু ট্যুর অপারেটররা নয় বরং এ শিল্প সংশ্লিষ্ট সবাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। জীবিকা নিয়ে গভীর অনিশ্চয়তা কাটিয়েছেন ট্যুর অপারেটর, ট্রাভেল এজেন্ট, হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট, রেস্তোরাঁ, এয়ারলাইনস, পর্যটক পরিবহন, ক্রুজিং ও গাইডিং সংশ্লিষ্ট অন্তত ৪০ লাখ পেশাজীবী। এমন পরিস্থিতিতে দেশে পর্যটক বাড়ছে। স্থানীয় পর্যটকরা ঘুরতে বের হচ্ছেন। বিদেশিরাও আসছেন। নতুন নতুন রিসোর্টও হচ্ছে। ফলে এক ধরনের চাঙাভাব দেখছি। করোনাকালের এই সময়ে, এটা আমাদের পর্যটনশিল্পে ইতিবাচক দিক।

সর্বশেষ খবর