শিরোনাম
শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২৩ ০০:০০ টা

ট্রেনের শিডিউল লন্ডভন্ড

সব ট্রেন দেরিতে ছাড়ছে, প্ল্যাটফরমে অপেক্ষায় থাকছেন যাত্রীরা পূর্বাঞ্চলের চেয়ে পশ্চিমাঞ্চলের শিডিউল বেশি এলোমেলো বিচ্ছিন্নভাবে নাশকতার ঘটনা ঘটছে

ওয়াজেদ হীরা

ট্রেনের শিডিউল লন্ডভন্ড

ধারাবাহিক রাজনৈতিক কর্মসূচিতে ট্রেন ও লাইন ঘিরে নাশকতা এবং ট্রেন দুর্ঘটনার কারণে শিডিউল কার্যত লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। ঢাকা থেকে সব ট্রেন বিলম্বে ছাড়ছে, প্রবেশও করছে দেরিতে। আধা ঘণ্টা থেকে সর্বোচ্চ ৮ ঘণ্টা পর্যন্ত বিলম্বে ট্রেন ছেড়ে যাচ্ছে। এতে সাধারণ মানুষের কাছে স্বস্তির ট্রেনযাত্রা রূপ নিচ্ছে অস্বস্তিতে। এমন পরিস্থিতিতে ট্রেনের শিডিউল ফিরিয়ে আনা চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন কর্মকর্তারা। যা আরও এক সপ্তাহ লেগে যেতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত কয়েকদিন কমলাপুর রেলস্টেশন ঘুরে অপেক্ষারত যাত্রীদের নানা দুর্ভোগ দেখা গেছে। গতকাল কমলাপুর রেলস্টেশনে গিয়ে দেখা যায় প্ল্যাটফরমে অসংখ্য যাত্রী অপেক্ষা করছেন ট্রেনের জন্য। এদের একজন শাহিনুল ইসলাম। তিনি নীলফামারী যাবেন। সময়মতো স্টেশনে এসে ট্রেনের জন্য কয়েক ঘণ্টা প্ল্যাটফরমে ঘোরাঘুরি করছেন। ট্রেনের অপেক্ষায় কেউ প্ল্যাটফরমে বসে পত্রিকা পড়ছেন, কেউ লুডু খেলছেন, কেউ হাঁটাহাঁটি করছেন। কেউ একটু পরপর স্টেশন ম্যানেজারের রুমে খোঁজ নিচ্ছিলেন ট্রেন কখন আসবে। কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে নীলফামারীগামী ‘চিলাহাটি এক্সপ্রেস’ ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ট্রেনটি কমলাপুর স্টেশনেই আসেনি। এই ট্রেনের সব যাত্রীদের দুর্ভোগ ছিল চরমে। সেই সঙ্গে চোখেমুখে ছিল বিরক্তি। দুই দফায় সময় বাড়িয়ে শেষ পর্যন্ত প্রায় ৮ ঘণ্টা বিলম্বে আড়াইটার ট্রেনটি নীলফামারীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ‘চিলাহাটি এক্সপ্রেস’ যাত্রীদের সঙ্গে অন্যান্য ট্রেনের যাত্রীরাও অপেক্ষা করছিলেন। প্ল্যাটফরম জনাকীর্র্ণ কিন্তু ট্রেনের   দেখা নেই। গতকাল জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস দুই ঘণ্টা, রংপুর এক্সপ্রেস এক ঘণ্টা ৪০ মিনিট, চিলাহাটি এক্সপ্রেস দেড় ঘণ্টা, রাজধানী এক্সপ্রেস, মোহনগঞ্জ-বনলতা ও সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস ট্রেন আধা ঘণ্টা থেকে ২ ঘণ্টা বিলম্বে কমলাপুর থেকে ছেড়ে গেছে। এ ছাড়া সুবর্ণ এক্সপ্রেস, মহানগর প্রভাতী, একতা এক্সপ্রেস, তিতাস এক্সপ্রেস, পারাবত এক্সপ্রেস, উপকূল ও মহানগর এক্সপ্রেস, সুন্দরবন এক্সপ্রেস, অগ্নিবীণা এক্সপ্রেস, এগারোসিন্ধুর প্রভাতী, উপবন এক্সপ্রেস, তূর্ণা এক্সপ্রেস, ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা এক্সপ্রেস, এগারোসিন্ধুর গোধূলী, লালমনি, দ্রুতযান, পদ্মা, চিত্রা, নীলসাগর, ধূমকেতু, রংপুর, কালনী, হাওর, কিশোরগঞ্জ, সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ট্রেন বিলম্বে ছেড়েছে। ঢাকা কমলাপুর রেলস্টেশন মাস্টার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, রাজনৈতিক কর্মসূচির কারণে ঢাকা রেলওয়ে স্টেশনে বিলম্বে ট্রেন আসায় বিলম্বে ছেড়ে যাচ্ছে। এতে যাত্রীদের ভোগান্তি বেড়েছে। আমরা যথাসাধ্য শিডিউল ঠিক রাখার চেষ্টা করছি। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যাবে আশা করছি। কমলাপুর রেলস্টেশন মাস্টার আরও বলেন, টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধু সেতু এলাকায় ট্রেন দুর্ঘটনার কারণে এ লাইনে শিডিউলে সমস্যা হয়েছে। সর্বশেষ গত ২২ নভেম্বর রাতে সিলেট রেলস্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকা উপবন এক্সপ্রেসে আগুন দেয় দুষ্কৃতকারীরা। এতে একটি বগি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এর আগে গত শনিবার রাতে জামালপুরের সরিষাবাড়ী রেলস্টেশন থেকে তারাকান্দি যাওয়ার সময় আন্তনগর ট্রেন যমুনা এক্সপ্রেসে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। গত ১৬ নভেম্বর মধ্যরাতে টাঙ্গাইল রেলস্টেশনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তাব্যবস্থার মধ্যেই দুর্বৃত্তরা টাঙ্গাইল কমিউটার ট্রেনের তিনটি বগি জ্বালিয়ে দেয়। একই দিন দিনাজপুরের বিরামপুর রেলস্টেশন এলাকায় রেলপথে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। গত মঙ্গলবার রাতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেললাইনের ওপর লোহার মোটা ভারী পাত রেখে দুর্ঘটনা ঘটানোর চেষ্টা চালায় দুর্বৃত্তরা। রেলওয়ের কর্মকর্তারা জানান, সরকারবিরোধীদের হরতাল-অবরোধ কর্মসূচি শুরু হওয়ার পর গেল তিন সপ্তাহে রেলপথে কমপক্ষে ১০টি নাশকতার ঘটনা ঘটেছে। রাজনৈতিক সহিংসতায় বারবার হামলার শিকার হচ্ছে একসময়ের নিরাপদ যোগাযোগব্যবস্থা হিসেবে পরিচিত রেলপথ। রেলকে হামলার অন্যতম লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করায় আতঙ্ক নিয়েই চলতে হচ্ছে যাত্রীদের। গত ৬ নভেম্বর ঢাকা-ময়মনসিংহ রেলপথে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা। ১ নভেম্বর ঈশ্বরদীর লোকোশেড এলাকায় মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনে হামলার ঘটনা ঘটে। ওই দিন দুপুরের দিকে ট্রেনটিতে পেট্রলসহ পাথর ও ইট ছুড়ে মারা হয়। রেলওয়ের ঢাকা বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা শাহ আলম কিরণ জানিয়েছেন, হরতাল-অবরোধে রেলওয়ের লোকোমাস্টার, সহকারী লোকোমাস্টার এবং সাব লোকোমাস্টারদের হেলমেট পরে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া ট্রেনের বিভিন্ন স্টেশনে নিরাপত্তাব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর