Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ জুলাই, ২০১৯ ১০:৩৭
আপডেট : ২২ জুলাই, ২০১৯ ১১:৪৫

জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চল

১ ডলার ১ সেন্টে জমি চায় জাপানি কোম্পানি

রুকনুজ্জামান অঞ্জন

১ ডলার ১ সেন্টে জমি চায় জাপানি কোম্পানি

জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করে একটি জাপানি কোম্পানি বছরে এক ডলার এক সেন্টে (প্রতি বর্গমিটার) ভাড়ায় জমি দেওয়ার আবেদন জানিয়েছে। জাপানি এই কোম্পানির নাম মারুহিসা।

প্রস্তাবিত অর্থনৈতিক অঞ্চলে কোম্পানিটি মিষ্টি আলু প্রক্রিয়াজাত করে রপ্তানির পাশাপাশি খাদ্য প্রক্রিয়াজাত কোম্পানি স্থাপন করতে চায়।

গত ২৩ মে কোম্পানির সিইও কিমিনবু হিরাইশি জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের জন্য আগ্রহপত্র পাঠায় বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা)-এর নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরীর কাছে।

আগ্রহপত্রে হিরাইশি জানান, অর্থনৈতিক অঞ্চলে ন্যূনতম ১০ হাজার বর্গমিটার জমি লাগবে তাদের। প্রতিবছর প্রতি বর্গমিটার জমির জন্য তারা ১ ডলার ১  সেন্ট ভাড়া দিতে চান। আগ্রহপত্রে তিনি কারখানা স্থাপনের জন্য বিদেশ থেকে আমদানিকৃত কেপিটাল মেশিনারিজ, নির্মাণ সামগ্রী আমদানিতেও শুল্ক সুবিধা চান। এ ছাড়া কারখানা স্থাপনের পর ওই কারখানায় উৎপাদিত সব ধরনের কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য রপ্তানির বিপরীতে ২০ শতাংশ হারে রপ্তানি প্রণোদনাও দাবি করেন তিনি।

বেজার কাছে পাঠানো আগ্রহপত্রে কোম্পানিটি জানিয়েছে, বাংলাদেশে কৃষকদের আয় বাড়ানোর পাশাপাশি কৃষি উৎপাদনে জাপানি প্রযুক্তি কাজে লাগাতে চায় তারা। বাংলাদেশের কৃষকদের কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ের (চুক্তিবদ্ধ কৃষি উৎপাদন) মাধ্যমে বিভিন্ন প্রকারের জাপানি মিষ্টি আলু উৎপাদনের উদ্যোগ নেবে তারা। এরপর এই আলু জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে প্রস্তাবিত কারখানায় কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার করে উৎপাদিত প্রক্রিয়াজাত পণ্য জাপানসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করবে তারা। উৎপাদিত পণ্য বাংলাদেশে বিক্রি করার পরিকল্পনাও রয়েছে বলে জানিয়েছে কোম্পানিটির সিইও।

কিমিনবু হিরাইশি বলেন, আমরা ২০২০ সালের মধ্যে জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে কার্যক্রম শুরু করতে চাই। প্রস্তাবিত এলাকায় ওই বছরই ৩০০ মেট্রিকটন, ২০২১ সালের মধ্যে ১ হাজার মেট্রিকটন এবং ২০২২ সালের মধ্যে ২ হাজার মেট্রিকটন মিষ্টি আলু উৎপাদনের পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। এ ছাড়া প্রস্তাবিত কারখানায় অন্যান্য সবজি ব্যবহার করে পুরি, জুস, চিপস এবং প্রক্রিয়াজাত শুকনা খাদ্য উৎপাদন এবং রপ্তানি পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছেন তিনি।

বেজার জোন ডেভেলপমেন্ট কনসালটেন্ট মাহবুবুর রহমান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, জাপানি কোম্পানি মারুহিসার বিনিয়োগ প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা চলছে। গতকাল বৈঠক হয়েছে তাদের সঙ্গে। মারুহিসার ১ ডলার ১ সেন্টে প্রতি বর্গমিটার জমি ভাড়া বিষয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে বছরভিত্তিক ভাড়া নিতে চাইলে প্রতি বর্গমিটারে ১ ডলার ৩৫ সেন্ট ভাড়া দিতে হবে। এটা কমাতে হলে সরকারের সিদ্ধান্ত লাগবে। আমরা তাদের বলেছি, আপনারা বিনিয়োগ কার্যক্রম শুরু করুন। বিনিয়োগের পর আপনাদের দাবি-দাওয়ার বিষয়গুলো বিবেচনা করা হবে।

তিনি বলেন, কোনো কোম্পানি জামালপুর অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করলে আমদানিতে শুল্ক ছাড়, বন্ডেড ওয়্যারহাউস ও স্থানীয় পর্যায়ে ক্রয়ের ওপর ভ্যাট অব্যাহতিসহ বিভিন্ন সুবিধা পাবে। এ ছাড়া ৫০ বছরের চুক্তিতে এককালীন শিল্প স্থাপনের জন্য প্রস্তুত করা জমি প্রতি বর্গমিটার ২৬ ডলার ২৫ সেন্ট এবং প্রস্তুতবিহীন প্রতি বর্গমিটার জমি ১৩ ডলার ২৫ সেন্টে ইজারা দেওয়া হচ্ছে। এটি অন্যান্য অর্থনৈতিক অঞ্চলের চেয়ে অনেক কম। অন্য সব অর্থনৈতিক অঞ্চলে এর চেয়ে বেশি দরে জমি বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য