শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ২১:২৯
আপডেট : ১৪ নভেম্বর, ২০১৯ ২১:৩৩

ভুয়া চিকিৎসকের অনুসন্ধানে নেমেছে সরকার: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভুয়া চিকিৎসকের অনুসন্ধানে নেমেছে সরকার: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
ফাইল ছবি

সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, দেশের সকল বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলোতে যে ভুয়া চিকিৎসক কাজ করছেন, তাদের চিহ্নিত করতে অনুসন্ধানে নেমেছে সরকার। সরকারের ভ্রাম্যমাণ আদালতের সহায়তায় ওইসব চিকিৎসক খুঁজে বের করার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। তাদের কাজে সহায়তা করতে র‌্যাব, পুলিশ, জেলা ও উপজেলা প্রশাসন ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সহায়তার দেশব্যাপী নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করা হয়ে থাকে। আজ অসীম কুমার উকিলের মৌখিক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক অনুপস্থিত থাকায় তার পক্ষে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

জাতীয় পার্টির এমপি মুজিবুল হকের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পক্ষে জন-প্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, দেশের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে চিকিৎসক সংকট রয়েছে। তবে আগামী বিশেষ বিসিএস অর্থাৎ ৩৯তম বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে শূন্যপদ পূরণ সাপেক্ষে যেসব চিকিৎসক নিয়োগ করা হবে, প্রত্যেক চিকিৎসককে কর্মস্থলে দুই বছর থাকা বাধ্যতামূলক নিশ্চিত করা হবে। 

বিএনপির হারুনুর রশীদের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, প্রতিটি উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১০ জন চিকিৎসক নিয়োগ করা হবে। এর জন্য স্পেশাল বিসিএসের মাধ্যমে ৪ হাজার সাড়ে ৭০০ চিকিৎসক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ৪৭৫০ জন ডাক্তার নিয়োগ হবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

সরকার দলীয় এমপি নুরুন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পক্ষে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, বর্তমানে দেশের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে মোট ৮৬ প্রকারের গড়ে প্রতি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বছরে ১০ লাখ টাকার ওষুধ সরবরাহ করা হচ্ছে। এছাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইমারজেন্সি বিভাগে ৪৫ প্রকারের গড়ে দেড় লাখ টাকার জরুরি ওষুধ সরবরাহ করা হচ্ছে। সরকারের সররবরাহ ওষুধ সেবা গ্রহণকারীদের জন্য যথেষ্ট। মন্ত্রী আরও বলেন, এই পরিমাণ ওষুধ সরবরাহের পরও চাহিদা থাকলে জরুরিভাবে ওষুধ সরবরাহ করা হচ্ছে। 

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার


আপনার মন্তব্য