শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৪:৪৫
আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৪:৪৫

পাবনা-৪ উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ: আওয়ামী লীগ-বিএনপির পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

পাবনা প্রতিনিধি

পাবনা-৪ উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ: আওয়ামী লীগ-বিএনপির পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন
আওয়ামী লীগের নুরুজ্জামান বিশ্বাস (বামে) ও বিএনপির হাবিবুর রহমান হাবিব।

পাবনা-৪ উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণের মধ্যেই বিএনপি ও আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

শনিবার বেলা ১২ টার দিকে বিএনপি প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ করে নির্বাচন বাতিল করে পুনঃনির্বাচন দাবি করেছেন।

অপরদিকে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে পাবনা প্রেসক্লাবে বেলা পৌনে একটার দিকে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

বিএনপি প্রার্থীর হাবিবুর রহমান ঈশ্বরদীর সাহাপুর গ্রামে তার নিজ বাসভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এই সরকার নির্লজ্জভাবে ভোট করছে। কোনও রকম ভোটের পরিবেশ নেই। আমাদের নেতা-কর্মীদের নামে তিনটি মামলা দায়ের করে কর্মীদের এলাকা ছাড়া করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, কোনও সেন্টারে বিএনপির এজেন্ট দিতে দেওয়া হয়নি। এখানে কোনও নির্বাচনই হচ্ছে না। এ কারণে এই নির্বাচন বাতিল চেয়ে তিনি পুনঃনির্বাচন দাবি করেন।

এদিকে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল সংবাদ সম্মেলন করে বলেন, বিএনপির প্রার্থী হাবিব এই নির্বাচনে জিততে আসেননি। তিনি বাণিজ্য করতে এসেছেন। নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই তিনি প্রথম থেকেই ষড়যন্ত্র করছিলেন। তাদের কোনও প্রচার-প্রচারণাও ছিল না। ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই তিনি এই নির্বাচন বাতিল চাইছেন।

এসএম কামাল আরও বলেন, আওয়ামী লীগের কর্মীরা কোথাও বিএনপি কিংবা হাবিব সাহেবের কোনও কর্মীকে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়নি। হুমকি-ধমকির প্রশ্নই আসে না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রেজাউল রহিম লাল, সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু এমপি, মুক্তিযোদ্ধা অঞ্জন চৌধুরী পিন্টুসহ বিভিন্ন পর্যায়ের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

এর আগে শনিবার সকাল ৯টা থেকে পাবনা-৪ উপ-নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়, যা বিরতিহীনভাবে চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলবে।

পাবনা-৪ আসনে দুটি পৌরসভা ও ১২টি ইউনিয়ন রয়েছে। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৮১ হাজার ১১২ জন।
ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ১২৯টি। নির্বাচনের দিন এসব ভোট কেন্দ্রে ২ হাজার ৩০১ জন প্রিসাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসার দায়িত্ব পালন করছেন।

পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম জানান, সার্বিক পরিবেশ ভালো রয়েছে। সব কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ, আনসার মোতায়েন আছে। এছাড়া নিরাপত্তা কাজে নিয়োজিত অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তারা দায়িত্ব পালন করছেন।

উল্লেখ্য, গত ২ এপ্রিল পাঁচবারের নির্বাচিত এমপি ও সাবেক মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফের মৃত্যুতে পাবনা-৪ আসনটি শূন্য হয়।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর