শিরোনাম
প্রকাশ : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১২:১৯
প্রিন্ট করুন printer

মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন ক্যাপ্টেন নওশাদ

অনলাইন ডেস্ক

মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন ক্যাপ্টেন নওশাদ
সংগৃহীত ছবি
Google News

বনানী কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইয়ুম। আজ বৃহস্পতিবার সকালে নওশাদ কাইউমের মরদেহে শ্রদ্ধা জানানোর পর বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী গণমাধ্যমকে এ কথা জানান।

এর আগে, তার মরদেহ ভারতের নাগপুর থেকে সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে (বিজি-০২৬) হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়।

নওশাদের মরদেহ বিমান থেকে নামানোর পর পর্যটন প্রতিমন্ত্রী ছাড়াও শ্রদ্ধা জানান সচিব মোকাম্মেল হোসেন, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুল ইসলাম, বাংলাদেশ পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মাহবুবুর রহমানসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা।

বাংলাদেশ বিমানের প্রধান কার্যালয় বলাকা ভবনের সামনে ক্যাপ্টেন নওশাদের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বাদ জোহর। তারপর বনানী কবরস্থানে তার মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হবে তাকে। এর আগে, সোমবার ভারতের নাগপুরের কিংসওয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ক্যাপ্টেন নওশাদ।

গত ২৭ আগস্ট ওমানের মাস্কাট থেকে ১২৪ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট (বিজি-০২২) উড্ডয়ন করেছিলেন ক্যাপ্টেন নওশাদ। পথে ভারতের আকাশে তিনি হার্ট অ্যাটাক করেন। পরে প্লেনটিকে মহারাষ্ট্রের নাগপুরে ড. বাবাসাহেব আম্বেদকর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করানো হয়। 

সেখান থেকে নওশাদকে নেওয়া হয় হাসপাতালে। ওই ফ্লাইটে ১২৪ জন যাত্রী ছিলেন। পরে যাত্রীদের নিরাপদে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। ২০১৬ সালেও বিমান চালনায় দক্ষতার কারণে ক্যাপ্টেন নওশাদকে পেশাগত দক্ষতা ও নৈপুণ্যের প্রশংসা করে স্বীকৃতি দেয় আন্তর্জাতিক পাইলট অ্যাসোসিয়েশন।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক

এই বিভাগের আরও খবর