৩ অক্টোবর, ২০২১ ২১:০৪

অপরাধ প্রবণতা কমেছে ১৬.০৭%, আসামি গ্রেফতার বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

অপরাধ প্রবণতা কমেছে ১৬.০৭%, আসামি গ্রেফতার বেড়েছে

বাল্যবিয়ে বন্ধে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সার্ভারের তথ্য ব্যবহার করে বিয়ের কাজীর তথ্য ও পাত্র-পাত্রীর বয়স যাচাইয়ের জন্য ‘ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট’ পদ্ধতি চালু করার প্রস্তাব দিয়েছে সংসদীয় কমিটির সদস্যরা। একইসঙ্গে নারী নির্যাতন বন্ধে থানার একজন মহিলা কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়ার পাশাপাশি প্রতিটি জেলায় অন্তত একটি করে ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার স্থাপন এবং মাদক দমনে প্রতিটি থানায় একজন অফিসার নির্ধারণ করে দেওয়ারও প্রস্তাব দেয়া হয়। 

এদিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বৈঠকে জানানো হয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ঘটনার আগেই প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থ গ্রহণ করায় গত বছরের তুলনায় অপরাধ প্রবণতা ও মামলার সংখ্যা ১৬.০৭% কমে এসেছে। ডাকাতি কমেছে ১৭.০৩ শতাংশ, অপহরণ ১৮.৭ শতাংশ ও খুন ৩% হ্রাস পেয়েছে। পক্ষান্তরে অপরাধ নিয়ন্ত্রণে পুলিশের আসামী গ্রেফতার প্রবণতা বেড়েছে। চলতি বছরের জুন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছে ২৯৯৯৫৩ জন। গত এক বছরে গ্রেফতার ছিল ৫৫৬৭০০জন।

সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ১৭তম বৈঠকে এসব প্রস্তাব দেয়া হয়।

‘স্ট্রেংদেনিং পার্লামেন্ট’স ক্যাপাসিটি ইন ইন্টিগ্রেটেড পপুলেশন ইস্যু ইনটু ডেভেলপমেন্ট (এসপিসিপিডি) প্রকল্পের পক্ষে এসব প্রস্তাব দেন ওই প্রকল্পের সদস্য ও সাবেক চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ দেন। কমিটি বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ এবং যৌন হয়রানি বন্ধে ‘বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব পার্লামেন্টারিয়ানস অন পপুলেশন এন্ড ডেভেলপমেন্ট (বিএপিপিডি)’ এর সাথে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্যদের পরামর্শ বিষয়ক কর্মশালার মাধ্যমে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের ওপর গুরুত্বারোপ করে।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি মোঃ শামসুল হক টুকু। কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন, পীর ফজলুর রহমান, নূর মোহাম্মদ এবং বেগম রুমানা আলী এবং বিশেষভাবে আমন্ত্রণে এসপিসিপিডি প্রকল্পের আ,স,ম ফিরোজ, মোছাঃ মাহাবুব আরা গিনি, মেহের আফরোজ, মোঃ আব্দুস শহীদ, আ.ফ.ম রূহুল হক, মোঃ হাবিবে মিল্লাত, উম্মে ফাতেমা নাজমা বেগম, মোছাঃ শামীমা আক্তার খানম, শামীম হায়দার পাটোয়ারী এবং আরমা দত্ত বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

সংসদের গণসংযোগ বিভাগ জানায়, মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বৈঠকে হাইকোর্টের নির্দেশনা বাস্তবায়নে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ বৈঠকে উপস্থাপন করা হয়। 

বৈঠকের কার্যপত্র থেকে জানা যায়, বৈঠকে স্বারষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থকে জানানো হয়, পুলিশের আসামি গ্রেফতার প্রবণতা বেড়েছে। চলতি বছরের জুন পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছে ২৯৯৯৫৩ জন। অথচ গত এক বছরে ৫৫৬৭০০জন গ্রেফতার ছিল। বৈঠকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে যৌন হয়রানী বন্ধ ও ইভটিজিং এর শিকার ব্যক্তিদের প্রয়োজনীয় নিরাপত্ত দেয়া হচ্ছে। যৌন হয়রানী প্রতিরোধে জরুরি সেবা ৯৯৯ বিশেষ ভূমিকা রাখছে। পুলিশ অধিদপ্তরে নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে বিশেষ সেল রয়েছে। নারীদের প্রতি হয়রানি প্রতিরোধে ‘পুলিশ সাইবার সাপোর্ট ফর উইমেন’ প্লাটফরম চালু করা হয়েছে। 

এছাড়া ‘বিডি পুলিশ হেলপ লাইন’ অ্যাপ রয়েছে। সারাদেশে পুলিশের ৮টি ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার রয়েছে। বাল্যবিয়ে বন্ধে তৃণমূল পর্যায়ে জনসচেতনা বৃদ্ধির কার্যক্রম অব্যাহত আছে। 

বৈঠক শেষে আ স ম ফিরোজ সাংবাদিকদের বলেন, বিয়ের পাত্র-পাত্রীর বয়স প্রমাণে এনআইডি যাচাইসহ বেশ কিছু প্রস্তাব তিনিসহ এসপিসিপিডি সদস্যরা দিয়েছেন। সংসদীয় কমিটি তাদের বক্তব্য আমলে নিয়েছেন। এ বিষয়ে পরবর্তীতে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে আমাদের বলেছেন।

বৈঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব, সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব, পুলিশ মহাপরিদর্শক এবং দুই বিভাগের অধীনস্থ সংস্থাসমূহের প্রধানরাসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর