শিরোনাম
বুধবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২৩ ০০:০০ টা

বাবার দেওয়া আগুনে পুড়ে মরল ঘুমন্ত ছেলে মেয়ে, দগ্ধ স্ত্রী

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বশিকপুরে স্ত্রী এবং দুই সন্তানকে বসতঘরে রেখে দরজা বন্ধ করে আগুন ধরিয়ে দেন কামাল হোসেন (৪০) নামে এক পাষ- যুবক। এ সময় আগুনে পুড়ে মারা যায় তার সাত বছর বয়সী শিশুকন্যা আয়েশা আক্তার। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় তিন বছর বয়সী শিশুপুত্র আবদুর রহমান। এ ঘটনায় দগ্ধ হয়েছেন তার স্ত্রী সুমাইয়া আক্তার (৩৫)। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। গতকাল ভোরে বশিকপুর ইউনিয়নের বশিকপুর গ্রামের চতলা বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। কামাল ওই বাড়ির মৃত আমিন উল্যার ছেলে। তিনি পেশায় অটোরিকশা চালক। বর্তমানে সে পুলিশের হেফাজতে আছে। মাদকাসক্ত হয়ে তিনি এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। 

বশিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান জানান, কামাল হোসেনের সঙ্গে তার স্ত্রীর পারিবারিক কলহ চলছিল। স্ত্রী এবং দুই সন্তানকে নিয়ে একটি সেমিপাকা টিনশেড ঘরে থাকতেন তিনি। গভীর রাতে স্ত্রী এবং দুই সন্তান ঘুমিয়ে গেলে কামাল ঘরের বাইরে এসে দরজা বন্ধ করে আগুন লাগিয়ে দেন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মেয়ে আয়েশা আক্তার মারা যায়। স্ত্রী সুমাইয়া এবং শিশুপুত্র আবদুর রহমানকে প্রথমে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পরে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয় তাদের। দুপুরের দিকে শিশু আবদুর রহমান চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। তার মায়ের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। ঘটনার পর কামাল নিজেই পুলিশের হাতে ধরা দেয়। ঢাকা মেডিকেল কলেজে থাকা সুমাইয়ার চাচাতো ভাই মো. শাহ আলম মোবাইলফোনে সাংবাদিকদের জানান, মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে চিকিৎসাধীন আবদুর রহমানের মৃত্যু হয়েছে।

তার মা সুমাইয়া আক্তারকে সেখানে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার শরীরের ৫০ শতাংশ পুড়ে গেছে বলে চিকিৎসকের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে ঘটনাস্থলে নিহত কামালের মেয়ে আয়েশা আক্তারের লাশ উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। দুপুরের দিকে তার ময়নাতদন্ত করা হয়।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আনোয়ার হোসেন বলেন, ভোররাতের দিকে আহত মা ও ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তাদেরকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে। শিশু আয়েশার লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। চন্দ্রগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মফিজ উদ্দিন বলেন, পারিবারিক কলহের জেরে কামাল তার বসতঘরে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। এ ঘটনায় কামাল হোসেনকে আটক করা হয়েছে।

সর্বশেষ খবর