Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৩০
আপডেট : ৮ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৩১

বিশ্বজয়ী নাজমুনকে অভিনন্দন যুক্তরাষ্ট্র কনসাল জেনারেলের

দিমা নেফারতিতি, নিউইয়র্ক:

বিশ্বজয়ী নাজমুনকে অভিনন্দন যুক্তরাষ্ট্র কনসাল জেনারেলের

যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বজয়ী নাজমুনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলের প্রথম নারী কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা। 

নিউইয়র্কে লং আইল্যান্ড সিটির কনস্যুলেট জেনারেল অব বাংলাদেশ অফিসে ৭ নভেম্বর সকাল ১১ টায় প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে নাজমুন নাহারের দুঃসাহসী এই বিশ্বভ্রমণের অভিযাত্রাকে অভিনন্দন জানান তিনি। 

এসময় কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা শোনেন নাজমুন নাহারের পৃথিবীব্যাপী বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকা বহনের কাহিনী। বাংলাদেশকে বিশ্বব্যাপী তুলে ধরার পাশাপাশি বিশ্বশান্তির বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার এই প্রয়াসকে নাজমুনের অনন্য নারী শক্তির বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেন কনসাল জেনারেল।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে নাজমুন নাহার অর্জন করেছেন বহু সমাদৃত আন্তর্জাতিক পিস টর্চ অ্যাওয়ার্ড। অতীতে এই সম্মানে ভূষিত হয়েছেন বিশ্ব শান্তির জন্য কাজ করা মাদার তেরেসা, নেলসন ম্যান্ডেলা, মায়া এন্জেলোর মত মনিষীরা।

সাদিয়া ফয়জুন্নেসার সাথে সাক্ষাতে নাজমুন জানান, গত ১৯ বছর ধরে নাজমুন ঘুরছেন পৃথিবীর দেশে দেশে বিশ্ব শান্তির বার্তা নিয়ে। এ পর্যন্ত বাংলাদেশের পতাকা বুকে নিয়ে নাজমুন ভ্রমণ করেছেন পৃথিবীর ১৩৫টি দেশ। 

বাংলাদেশের পতাকা হাতে ইতিমধ্যেই নাজমুন নাহারের ১৩৫ দেশ ভ্রমণের অর্জনকে সাধুবাদ জানান কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা। এছাড়া তার পরবর্তী দেশ ভ্রমণের জন্য নিরাপদ ও সাবধানে থাকার জন্য পরামর্শ দেন তিনি। 

আলাপচারিতায় নাজমুন জানান, তার জীবন, বেড়ে ওঠা এবং বিশ্বব্যাপী দু:সাহসিক অভিযাত্রার অন্যতম অনুপ্রেরণা যেমন তার বাবা-মা, তেমনি বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

এই গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তের আলাপচারিতায় সাদিয়া ফয়জুন্নেসা নাজমুনকে অনুপ্রাণিত করেন, তার দু:সাহসিক ভ্রমণের অভিজ্ঞতা নিয়ে বই লিখতে বলেন যা বাংলাদেশের বর্তমান ও আগামী প্রজন্মকে দারুণভাবে উৎসাহিত করবে। 

এরপর যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত প্রথম নারী কনসাল জেনারেল ও নাজমুন নাহার পতাকা একসাথে স্পর্শ করে লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের সকল মানুষের জন্য শুভ কামনা করেন। পরবর্তীতে সাদিয়া ফয়জুন্নেসা নাজমুনকে নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনসুলেট সার্ভিসের আধুনিকায়ন এবং অধিকতর গ্রাহকসেবাবান্ধব কার্যক্রম ঘুরে দেখান। 

নাজমুন বলেন, সাদিয়া ফয়জুন্নেসার মতো নারীরা আমাদের সমাজের নারীদের বেড়ে ওঠার অপার শক্তি ও সাহস। যুক্তরাষ্ট্রের মতো জায়গায় বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করছেন এই দক্ষ নারী কনসাল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা। তার এই দক্ষতাকে আমি শ্রদ্ধা জানাই।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য