শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:১৩

মাহমুদুলের সেঞ্চুরিতে সিরিজ বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মাহমুদুলের সেঞ্চুরিতে সিরিজ বাংলাদেশের
জয়ের নায়ক মাহমুদুল

নিউজিল্যান্ডে দাঁড়াতেই পারছে না বাংলাদেশ জাতীয় দল। টানা দুই ম্যাচে শোচনীয় হারে ওয়ানডে সিরিজ হাত ছাড়া করেছেন মাশরাফি, তামিম, মুশফিকরা। এখন হোয়াইট ওয়াশের শঙ্কায় ধুঁকছে। বড়রা হারলেও যুবারা এনে দিয়েছে ঐতিহাসিক বিজয়। চট্টগ্রামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যুব টেস্টে দুটিতেই গৌরবময় জয় পেয়ে ইংলিশদের হোয়াইট ওয়াশ করেছে বাংলাদেশের যুবারা। সিরিজে প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ জয় পেয়েছিল ৮ উইকেটে। গতকাল শেষ টেস্টে অনূর্ধ্ব-১৯ দল জিতল ২ উইকেটে।

দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের জয়টা ছিল অবিশ্বাস্য। সফরকারী ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল প্রথম ইনিংসে করে ৩৩৭ রান। বাংলাদেশ সেখানে ২২৮ রানে অল আউট হয়ে যায়। দ্বিতীয় ইংনিসে জয়ের জন্য ইংলিশরা বাংলাদেশকে ৩৩৩ রানের টার্গেট ছুঁড়ে দেয়। আগের দিন ৩৪ রানে ১ উইকেট হারালে ধরে নেওয়া হয় বাংলাদেশ বড় ব্যবধানে হারতে যাচ্ছে।

ক্রিকেটে অসম্ভব বলে কিছু নেই। কিছুদিন আগে শেষ জুটিতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে প্রমাণ দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। কুশল পেরেরার অনবদ্য সেঞ্চুরিতে অবিশ্বাস্য জয় তুলে নেয় লঙ্কানরা। কাল যেন চট্টগ্রামে সেই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি ঘটল। ১ উইকেটে ৩৪ রান নিয়ে গতকাল শেষ দিনে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ২৯৯। অর্থাৎ প্রায় ৩৩০ রান। মাহমুদুল হাসানের রাঙানো সেঞ্চুরি ও তোহিদ হৃদয়ে সঙ্গে তার জুটিতে সেই চ্যালেঞ্জটাই জিতে নিল বাংলাদেশের যুবারা।

ওপেনার তানজিদ হাসানের ৫১ বলে ৫১ রান দলের প্রাণ সঞ্চার করে। তিনে নেমে পারভেজ করেন ৮১ বলে ৩৭ রান। চতুর্থ উইকেটে হৃদয়ের সঙ্গে মাহমুদুলের ১৪২ রানে জুটিটাই খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেয়। ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৭৬ করে আউট হন হৃদয়। কিন্তু মাহমুদুল ছিলেন অপ্রতিরোধ্য। ২২৪ বলে ১১৪ রান করে যখন তিনি আউট হন, দল তখন জয়ের বন্দরের কাছাকাছি। সাতে নেমে ২৫ বলে ২০ রানের কার্যকর ইনিংস খেলেন শাহাদাত হোসেন।

বাংলাদেশ যখন ম্যাচ জেতে তখনো বাকি ছিল ২৫ বল। ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ১০৯ রানে পিছিয়ে এ জয় অবশ্যই বাংলাদেশের গৌরবময়। এ থেকে বড়দেরও শিক্ষা নেওয়া উচিত। ম্যাচ জেতানো সেঞ্চুরির আগে প্রথম ইনিংসেও ৭৬ রান করে ম্যাচসেরা হন মাহমুদুল। তবে প্রথম টেস্টে ৯ ও দ্বিতীয় টেস্টে ৭ উইকেট নিয়ে সিরিজসেরা হন বাঁহাতি স্পিনার মিনহাজুর রহমান।


আপনার মন্তব্য