শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪৫

ক্রিকেট গার্ডেনে ক্রিকেট নেই

রেজাউল করিম মানিক, রংপুর

ক্রিকেট গার্ডেনে ক্রিকেট নেই

রংপুর শহরের প্রাণকেন্দ্রে ঐতিহ্যবাহী শ্যামাসুন্দরী খালের পাশে ১৯৭৯ সালে তৈরি করা হয়েছিল রংপুর ক্রিকেট গার্ডেন স্টেডিয়াম। ৪০ বছর আগে তৈরি করা হলেও স্টেডিয়ামে আজ লাগেনি আধুনিকতার ছোঁয়া। ফ্লাডলাইট তো নেই-ই, নেই ড্রেসিং রুম, প্যাভিলিয়ন ও মিডিয়া সেন্টার। আর এখন ক্রিকেট গার্ডেনে ক্রিকেটই নেই।  ২০ বছর আগে এখানে প্রথম ও দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল ও ক্রিকেট এবং প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট খেলা হতো নিয়মিত। তৃতীয় বিভাগ ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করত ২৫ থেকে ৩০টি দল। কিন্তু এখন সেসব অতীত। খেলা বাদ দিয়ে এই গার্ডেন নিয়ন্ত্রণ নিয়ে ব্যস্ত এখানকার প্রভাবশালীরা। পছন্দের ব্যক্তিদের দায়িত্বে বসাতে এক দশকের বেশি সময় ধরে প্রতিযোগীমূলক নির্বাচন হয় না জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থায়। রংপুর ক্রিকেট একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী সদস্য শাকিল রায়হান বলেন, স্থানীয় ছেলেমেয়েদের শারীরিক বিকাশ ও নতুন খেলোয়াড় তৈরির জন্য ৪০ বছর আগে এ ক্রিকেট গার্ডেনটি নির্মাণ করা হয়। কিন্তু একটি সিন্ডিকেট গ্রুপের কারণে এখানে খেলা হয় না। সারা বছর মাঠ ফাঁকা পড়ে থাকে। ব্যক্তি উদ্যোগে খেলাধুলার আয়োজন করতে চাইলেও ক্রীড়া সংস্থা অজ্ঞাত কারণে মাঠ ব্যবহার করতে দেয় না। নামে ক্রিকেট গার্ডেন হলেও অন্যান্য খেলাধুলাও চলত সমান তালে। রংপুরের খেলোয়াড় ও সংগঠক রিফাত হোসেন জানান, ‘আগে রংপুর ক্রিকেট গার্ডেনে নিয়মিত ১ম ও ২য় বিভাগ ফুটবল-ক্রিকেট লিগ হতো। এছাড়া হ্যান্ডবল, ভলিবল লিগসহ নানা খেলাধুলার আয়োজনে এই গার্ডেন থাকত সরগরম। কিন্তু এখন সেখানে নেই কোনো কার্যক্রম।’ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আমি সদ্য যোগদান করেছি, ইতিমধ্যেই ক্রীড়া সংস্থাকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। শিগগিরই ২য় বিভাগ ক্রিকেট শুরু করা হবে। এছাড়া বয়সভিত্তিক ফুটবল ও ক্রিকেট লিগও শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে। খেলাধুলার মাধ্যমে রংপুর ক্রিকেট গার্ডেন মুখরিত করে রাখার পরিকল্পনা রয়েছে।

 


আপনার মন্তব্য