Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৫

সেরা ভেন্যু নিয়েই সংশয়!

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সেরা ভেন্যু নিয়েই সংশয়!

বাফুফেরই বিবেচনায় গেল  পেশাদার লিগে ঢাকার বাইরে যে কটি ভেন্যু হয় তার মধ্যে নীলফামারীই ছিল সেরা। কেনো ক্লাবেরই এ ভেন্যু নিয়ে অভিযোগ নেই। অথচ সামনের লিগে নীলমফামারীতে ম্যাচ হবে কি-না তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। কেননা কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে বাফুফের সিনিয়র সহসভাপতি এবং লিগ কমিটির চেয়ারম্যান সালাম মুর্শেদী এমপি বলেছেন, দূরত্বটা বেশি বলে অনেক ক্লাবই নীলফামারীতে খেলতে আগ্রহী নন। গোপালগঞ্জে ভেন্যু নিয়েও আপত্তি তুলেছে। সালামের কথা ক্লাবগুলো যদি আপত্তি করে তাহলে দুই ভেন্যুতে ম্যাচ আয়োজন নাও হতে পারে। সালাম বলেছেন, আমরা দ্রুত লিগ শেষ করতে চাচ্ছি। আর্মি ও কমলাপুর স্টেডিয়ামকে ব্যবহার করতে। সেসঙ্গে ঢাকার বাইরে কুমিল্লা ও নরসিংদীতেও হতে পারে নতুন ভেন্যু। কারণ ঢাকার সঙ্গে দূরত্ব কম বলে এখানে কেউ আপত্তি তুলবে না। ঢাকার বাইরে ভেন্যু যদি বাড়ে তাতো খুশির খবর। কিন্তু অন্য ভেন্যু নিয়ে আবার সংশয় কেন? তাও আবার সেরা ভেনু নীলফামারীকে নিয়ে। কোন ক্লাবের আপত্তি তা জানা যায়নি। তবে তাদের জানার প্রয়োজন রয়েছে। পোশাদার লিগে প্রতিটি দলের হোম ভেন্যুটা থাকা বাধ্যতামূলক। যাক অর্থের কারণে তাদের পক্ষে সম্ভব নয়। কিন্তু বসুন্ধরা কিংস বা অন্য যারা পারছে তাদের কাজে বাধা দেওয়ার অধিকার কি তাদের আছে?

বাফুফেও এখানে নীরব ভূমিকা পালন করছে কেন? দূরত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। নীলফামারী কি বাংলাদেশের বাইরে? তাছাড়া ঢাকার আশপাশের জেলা ছাড়া ভেন্যু করা যাবে না এ নিয়ম কি লিগের বাইলজে আছে? সারা দেশে লিগ ছড়িয়ে পড়লেতো উপকার হবে ফুটবলেরই। তাহলে কি তারা চান না বসুন্ধরা দেশের ফুটবল উন্নয়নে ভূমিকা রাখুক। জানি না এ কিসের আলামত। অভিষেকেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে কিংস ইতিহাস গড়েছে তা কি তারা মানতে পারছেন না।

বসুন্ধরার আগমনে ঘরোয়া ফুটবলের চেহারা পাল্টাতে শুরু করেছে। সালামও স্বীকার করছেন বসুন্ধরার ভূমিকার কথা। তিনি বলেন, নীলফামারী দূর বলেই প্রশ্ন উঠেছে। তার মানে এই নয়তো যে ভেন্যু বাতিল করে দিচ্ছি। এ নিয়ে আমরা বসুন্ধরা কিংসের ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে আলোচনা করব। আমার বিশ্বাস সুন্দর একটা সমাধান হবে। অন্যদিকে বসুন্ধরা কিংসের সভাপতি ইমরুল হাসান বলেন, আলোচনায় বসতেই পারি। তবে নীলফামারী ভেন্যু বাতিল করলে আমরা তা কোনোভাবে মানব না। ফুটবলের বৃহত্তর স্বার্থেই আমরা কাজ করছি। ঢাকায় নিজস্ব ভেন্যুর কাজ এগিয়ে চলেছে। অন্যরা পারছে না বলে ষড়যন্ত্রের জাল বুনা হচ্ছে কিনা এটাও প্রশ্ন হয়ে দেখা দিচ্ছে।


আপনার মন্তব্য