শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ মে, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ মে, ২০২০ ২৩:৪৭

এখনই শ্রীলঙ্কা সফর নয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক

এখনই শ্রীলঙ্কা সফর নয়
যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেলের হাতে চেক হস্তান্তর করছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন

করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত জনজীবন। মাঠে নেই ক্রিকেট। ঘরবন্দী থাকতে থাকতে হাঁপিয়ে উঠেছেন ক্রিকেটাররা। এখন মাঠে ফিরতে মরিয়া তারা। কিন্তু পরিবেশ ও পরিস্থিতি এখনো ক্রিকেট উপযোগী নয় বলে ক্রিকেট বোর্ডগুলো সিদ্ধান্তে আসতে পারছে না। টি-২০ বিশ্বকাপ নিয়েও সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না আইসিসি। পরিস্থিতি ভীষণ জটিল। তারপরও ক্রিকেট শ্রীলঙ্কা (সিএ) চাইছে ঘরের মাঠে আতিথেয়তা দিতে বাংলাদেশ ও ভারতকে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন স্পষ্ট করেই বলেছেন, শ্রীলঙ্কা সফরে যেতে বিসিবির আপাতত কোনো আগ্রহ নেই। তবে পরিস্থিতি বিবেচনা করে এবং অপরাপর দেশগুলোর সিদ্ধান্তের পর মাঠে ফেরার কথা ভাববে বিসিবি। গতকাল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সম্মেলন কক্ষে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত খেলোয়াড়দের আর্থিক সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে এমনটাই জানিয়েছেন। বিসিবি ২৪টি ফেডারেশনের বাছাইকৃত ৫০১ জন ক্রীড়াবিদকে ১০ হাজার টাকা করে ৫০ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা দিয়েছে। জুলাইয়ে দ্বীপরাস্ট্র সফরে দুটি টেস্ট খেলার কথা মুমিনুলদের।

করোনাভাইরাসে বাংলাদেশের অবস্থার কোনো পরিবর্তন নেই। বরং দিন দিন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। গতকাল পর্যন্ত বাংলাদেশে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২৬ হাজার ৭৩৮ জন এবং মৃত ৩৮৬ জন। শ্রীলঙ্কার অবস্থা যে কোনো দেশ থেকে ভালো। পরিস্থিতি এখন অনেক স্থিতিশীল এবং নিয়ন্ত্রিত। দ্বীপরাস্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা মাত্র ১ হাজার ২৭ এবং মৃতের সংখ্যা ৯ জন। গত দুই সপ্তাহ ধরে পরিস্থিতি বলেই দেশটির ক্রিকেট বোর্ড চাইছে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের টেস্ট দুটি আয়োজনের। তিন দিন আগে ক্রিকেট শ্রীলঙ্কা (সিএ) জানিয়েছে, জুলাইয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে পূর্ব নির্ধারিত সিরিজটি আয়োজন করতে রাজি আছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে বিসিবি সভাপতি গতকাল জানিয়েছেন, আপাত শ্রীলঙ্কা সফর সম্ভব নয়, ‘শ্রীলঙ্কা আয়োজক হতে চাইলেই তো হবে না। আমরা আমাদের খেলোয়াড়দের পাঠাতে পারব কিনা, সেটা দেখতে হবে। খেলোয়াড়রা কোথায় থাকবে, কী করবে, এগুলো এতো সহজ সিদ্ধান্ত নয়। এখন একটি জায়গা ভালো আছে। একমাস পর আবার অন্যরকম হতেই পারে। এখনই বলা যাচ্ছে না, করোনাভাইরাস ভবিষ্যতে কি রূপ নিবে।’

করোনাভাইরাসের জন্য স্থগিত হয়ে গেছে বাংলাদেশের পাকিস্তান ও আয়ারল্যান্ড সফর এবং অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফর। শুধু বাংলাদেশ নয়, স্থগিত হয়ে আছে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপসহ আইপিএল এবং অপরাপর সিরিজগুলো। কভিড-১৯ পরিস্থিতি কবে, কখন থেমে যাবে ধারণা নেই কারও। তাই এখনই কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারছে না বিসিবি, বলেন নাজমুল হাসান পাপন, ‘আমরা এখন অন্যদের পর্যবেক্ষণ করব। আইসিসি ও এসিসি কী করে এবং অপরাপর দেশগুলোও কী করে, সেসব দেখার পর আমরা সিদ্ধান্ত নিব।’

ক্রিকেট আবার কবে হবে, নিশ্চিত নন কেউ। তবে বিসিবি চাইছে শিগগিরই মাঠে ফিরুক ক্রিকেট। 


আপনার মন্তব্য