শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২৩:১২

আন্দোলনে নামছেন ফুটবলাররা!

ক্রীড়া প্রতিবেদক

লিগ কমিটি ও ক্লাব প্রতিনিধিরা বসে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডিসেম্বর থেকে ঘরোয়া ফুটবল শুরু করার। কমিটির চেয়ারম্যান বাফুফে সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাম মুর্শেদী দৃঢ়কণ্ঠে বলেছেন, সব সমস্যার নিরসন করেই আমরা ফুটবল নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। করোনাভাইরাসের কারণে মার্চ থেকে ফুটবল বন্ধ। অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন ফুটবলাররা। বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব ও এএফসি কাপ বাতিল হয়েছে। এ অবস্থায় নতুন মৌসুমের ঘোষণাটা নিঃসন্দেহে স্বস্তিদায়ক।

যাক ঘোষণা হলেও নতুন মৌসুম ঘিরে আবারও জটিলতা তৈরি হয়েছে। আর তা ফুটবলারদের পারিশ্রমিক ঘিরে। গেল মৌসুমে ৫/৬ ম্যাচের পরই পেশাদার লিগ বাতিল ঘোষণা হয়। অবশ্য ক্লাবগুলো খেলতে রাজি না হওয়ায় বাফুফে বাতিল ঘোষণা করতে বাধ্য হয়। অনেক ফুটবলারই পারিশ্রমিকের অর্ধেকের বেশিও পেয়ে যায়। তবু ক্লাবগুলো বলেছে তারা কোনো অর্থ ফেরত নেবে না। যাদের বকেয়া আছে তাও মিটিয়ে দেওয়া হবে। নতুনভাবে দল বদলের যেহেতু দরকার নেই। পুরনোদেরই ধরে রাখবে। নতুন মৌসুমে আগের চুক্তি মোতাবেক ২০ ভাগ বাড়ানো হবে।

ফুটবলাররা পরবর্তীতে বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও লিগ কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে জানান, অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটের কথা চিন্তা করে অবশ্যই তারা ছাড় দেবে। তবে তা হবে ৫০ ভাগ। শেষ বৈঠকে ক্লাবগুলো রাজি হয়েছে নতুনভাবে ২৫ ভাগ পারিশ্রমিক বাড়াতে। সালাম মিডিয়াকে জানান, ক্লাবগুলোকে অনেক বুঝিয়ে শুনিয়ে ২৫ ভাগ রাজি করিয়েছি। আসলে যে মন্দা অবস্থা এর চেয়ে বেশি বাড়ানো সম্ভব নয়। এ সিদ্ধান্তের পর ফুটবলাররা চুপই ছিল। মনে হচ্ছিল তারা রাজি হয়ে যাবে।

না ফুটবলাররা টোয়েন্টি ফাইভে রাজি নয়। ৫০ না হলেও ক্লাবগুলোকে নতুন মৌসুমে ৪০ ভাগ পারিশ্রমিক দিতে হবে। তা না হলে তারা আন্দোলনের ডাক দিতে পারে। গতকালই বাফুফের সভাপতির সঙ্গে সিনিয়র ফুটবলারদের বসার কথা ছিল। কিন্তু সামনের নির্বাচনের কারণে সে বৈঠক বাতিল হয়েছে। জাতীয় দলের দুই তারকা বলেন, এখনই আমরা আন্দোলনের কথা ভাবছি না। আশা করি মানবতার কথা ভেবে ক্লাবগুলো তাদের সিদ্ধান্ত বদল করবে। নতুন বা পুরনো যারাই জয়ী হোক না কেন নির্বাচনের পর বসব। ২৫ ভাগ বৃদ্ধি আমরা কোনোভাবেই মানি না। ছাড়তো দিচ্ছিই তাই বলে হাস্যকর পারিশ্রমিক পাব। অর্থ যদি নাই থাকে এখনই কোনো কোনো ক্লাব হাজার হাজার ডলারের বিনিময়ে বিদেশি ফুটবলারদের বেছে নিচ্ছে। আমাদের বেলায় যত সংকট।


আপনার মন্তব্য