শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ জুন, ২০২১ ২৩:০৪

ছুটছে ‘সতর্ক’ ইংল্যান্ড

লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের পক্ষে জয়সূচক গোলটি করেন স্টারলিং (১২ মিনিট)। এ জয়ে ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ডি গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত করল ইংলিশরা

ক্রীড়া ডেস্ক

ছুটছে ‘সতর্ক’ ইংল্যান্ড
চেকপ্রজাতন্ত্রের বিরুদ্ধে গোলের পর ইংলিশদের সেলিব্রেশন
Google News

বিশ্বকাপ কিংবা ইউরো কাপে ইংল্যান্ডের যে কোনো ম্যাচেই সমর্থকরা গলা ছেড়ে ‘ইটস কামিং হোম’ গান গায়। এবারের ইউরো কাপেও তাদের গান গাওয়া থেমে নেই। দীর্ঘদিন থেকে ফুটবলের আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় শিরোপা শূন্য ইংল্যান্ড এবার বেশ সতর্কতার সঙ্গে ছুটে চলেছে। গোল করার চেয়েও তাদের পরিকল্পনায় থাকছে নিজেদের গোলবার সামলে রাখার বিষয়টি। গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচে ডিফেন্স সামলাতে গিয়ে ইংলিশরা গোল করেছে কেবল ২টি। তবে ইংলিশ সমর্থকদের জন্য আশা কথা, তিন ম্যাচে একটা গোলও হজম করেনি ইংল্যান্ড।

ইউরো কাপে গ্রুপপর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে চেক প্রজাতন্ত্রকে ১-০ গোলে হারিয়েছেন হ্যারি কেইনরা। লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের পক্ষে জয়সূচক গোলটি করেন স্টারলিং (১২ মিনিট)। এ জয়ে ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ডি গ্রুপের শীর্ষে থেকেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত করল ইংলিশরা। অবশ্য হেরেও নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়েছে চেক প্রজাতন্ত্রের। ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপের তিন নম্বর দল হিসেবে শেষ ষোলোতে খেলবে চেকরা। এই গ্রুপে দুইয়ে থেকে শেষ ষোলোতে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে ক্রোয়েশিয়া। গত বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টরা মঙ্গলবার স্কটল্যান্ডকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে। ক্রোয়েশিয়ার পক্ষে দুর্দান্ত খেলেছেন লুকা মডরিচ। একটা গোল করেছেন ৬২ মিনিটে। ৭৭ মিনিটে পেরিসিচের গোলে এসিস্টও করেছেন তিনি। অপর গোলটি করেন নিকোলা ভøাসিচ। প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে ১-০ গোলে পরাজয় এবং দ্বিতীয় ম্যাচে চেক প্রজাতন্ত্রের সঙ্গে ১-১ গোলের ড্রতে ইউরো কাপে বিদায় ঘণ্টা বাজছিল ক্রোটদের। তবে মডরিচ ম্যাজিকে শেষ ষোলো নিশ্চিত করল ক্রোয়েশিয়া।

ইউরো কাপে এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে সফল ডিফেন্স ইতালির। তারা প্রতিপক্ষের জালে যেমন অপ্রতিরোধ্য গতিতে আক্রমণে গেছে তেমনি নিজেদের গোলবার সামলেছে নিপুণ দক্ষতায়।

গ্রুপপর্বে তিন ম্যাচে ৭ গোল করেছে ইতালি। বিপরীতে গোল হজম করেনি একটিও। এরপরই ইংল্যান্ডের স্থান। তারা নিজেদের গোলবার অক্ষত রাখলেও প্রতিপক্ষের জালে গোল দিয়েছে কেবল ২টি। সুইডেনও গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে কোনো গোল হজম করেনি। বিপরীতে গোল করেছে ১টি। তবে গ্রুপ পর্বে আক্রমণভাগে সবার সেরা ছিল নেদারল্যান্ডস।