শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৭ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ জুলাই, ২০২১ ২৩:৩৮

বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ে টেস্ট শুরু আজ

টেস্টে জিম্বাবুয়েও বড় চ্যালেঞ্জ!

‘ভাঙাচোরা’ দলটিও এখন বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ! ম্যাচপূর্ব ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের অধিনায়ক মুমিনুল হক সে কথা স্বীকারও করলেন

ক্রীড়া প্রতিবেদক

টেস্টে জিম্বাবুয়েও বড় চ্যালেঞ্জ!
Google News

জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট নানামুখী জটিলতার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। কখনো বোর্ডের সঙ্গে ক্রিকেটারদের বনিবনা হচ্ছে না, আবার কখনো খেলোয়াড়রা বেতনের দাবিতে আন্দোলন করছে। মাঝে বেশ কিছুদিন তো জিম্বাবুয়ে স্বেচ্ছায় টেস্ট ক্রিকেট থেকে দূরে ছিল।

সাদা পোশাকের ক্রিকেটে আবার ফিরলেও তাদের পারফরম্যান্স আহামরি নয়। কিছু দিন আগে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে তারা হোয়াইটওয়াশ হয়েছে। এই ‘ভাঙাচোরা’ দলটিও এখন বাংলাদেশের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ! ম্যাচপূর্ব ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের অধিনায়ক মুমিনুল হক সে কথা স্বীকারও করলেন।

সিরিজের একমাত্র টেস্ট খেলতে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে। খেলা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় দুপুর দেড়টায়।

দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল খেলবেন কিনা তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ একাদশে সুযোগ পাচ্ছেন কিনা সে বিষয়ও অনিশ্চিত।

জিম্বাবুয়ে কি অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, ভারত, নিউজিল্যান্ডের মতো ভয়ঙ্কর দল যে, একজন ক্রিকেটার খেলবেন কিনা সেজন্য ম্যাচের আগের দিনও সিদ্ধান্ত নিতে পারে না টিম ম্যানেজমেন্ট!

গতকাল তামিম ইকবালের ব্যাপারে ক্যাপ্টেন বলেন, ‘তামিম ভাই আমাদের দলের খুবই গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। আগামীকাল (আজ) পর্যন্ত দেখব, তারপর সিদ্ধান্ত নেব। আর রিয়াদ ভাইয়ের বিষয়টি আমরা এখনো ওইভাবে দেখতে পারিনি। টিম ম্যানেজমেন্ট এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। তবে আমরা আশাবাদী।’

ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে জিম্বাবুইয়ান এক সাংবাদিক বাংলাদেশের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে মুমিনুল বলেন, ‘ আমাদের প্রস্তুতি খুবই ভালো। টেস্ট ম্যাচে জয় পাওয়া কঠিন। খুবই চ্যালেঞ্জিং।’

তামিম ইকবালকে নিয়ে শঙ্কা থাকলেও মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিম পুরোপুরি সুস্থ। তা ছাড়া এই টেস্টে ‘ক্ষুধার্ত’ সাকিব আল হাসানকে পাচ্ছে বাংলাদেশ। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাটে-বলে দাপট দেখিয়েছেন। কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেন, ‘সাকিব থাকলে দলের ব্যালান্স খুব ভালো হয়। সে শীর্ষ ছয়ে ব্যাট করে, মূল বোলারদেরও একজন। সব আন্তর্জাতিক দলই এমন একজনকে চায়। তাকে পাওয়া তাই সত্যিই দারুণ। এই সফরে সে প্রাণশক্তি ও মানসিকতা নিয়েও এসেছে।’

বাংলাদেশের প্রধান কোচ এবং ব্যাটিং কোচ দক্ষিণ আফ্রিকার। তাই প্রতিবেশী দেশের উইকেট এবং আবহাওয়া সম্পর্কে তারা খুব ভালো করেই জানেন। ঘরের মাঠে কীভাবে জিম্বাবুয়েকে হারাতে হবে সে কৌশলটা ভালো করেই জেনে গেছে বাংলাদেশ। কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেন, ‘হারারেতে খেলার ক্ষেত্রে খুব গুরুত্বপূর্ণ হলো ধৈর্য। কয়েকবার আমি এখানে এসেছি, স্কোরিং রেট খুব উঁচু নয়। ব্যাটিং হোক বা বোলিং, ধৈর্যের খেলা হবে এখানে। লম্বা সময় চাপ ধরে রাখতে হবে উইকেট নেওয়ার জন্য। এটা এমন ভেন্যু নয়, যেখানে কোনো ব্যাটিং লাইন আপ গুঁড়িয়ে দেওয়া যায় বা এক দিনে সাড়ে তিনশ রান করে ফেলা যায়।

 কোচ বলেন, ‘কঠিন লড়াইয়ের ক্রিকেট হয় এখানে। ওরা (জিম্বাবুয়ে দল) এখানে খুব স্মার্ট ক্রিকেট খেলে। আমরা তাই জানি, আগামী কয়েকদিনে আমাদের কাজ সহজ হবে না। আমাদের নিশ্চিত করতে হবে যেন ধৈর্য ও শৃঙ্খলা ধরে রাখতে পারি, সুযোগগুলো যেন নিতে পারি। কারণ এখানে সুযোগ খুব সহজে আসবে না। তাই যখন সুযোগ আসবে, তা নিতে হবে।’