শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ১৪:৪৯

ভারতীয় পিয়াজে সয়লাব সিলেটের বাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক , সিলেট

ভারতীয় পিয়াজে সয়লাব সিলেটের বাজার

অবৈধভাবে ভারত থেকে আনা পিয়াজে সয়লাব এখন সিলেটের পাইকারি বাজার। অবৈধভাবে আসা পিয়াজ বাজারে ঢুকায় দাম কিছুটা নিম্নমুখী হলেও বিপাকে পরেছেন বৈধভাবে পিয়াজ আনা ব্যবসায়ীরা।

মঙ্গলবার সকাল থেকে নগরীর সবচেয়ে বড় পাইকারি বাজার কালিঘাট ঘুরে এসব তথ্য জানা গেছে।

মঙ্গলবার সিলেটের পাইকারি বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ১০০-১২০ টাকায় আর খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ১২০-১৩০ টাকায়।

ব্যবসায়ীরা জানান, ভারত পিয়াজ রফতানি বন্ধ করায় দেশে হঠাৎ করে পিয়াজের সংকট দেখা দেয়। এতে বাজারে দামও বৃদ্ধি পায় কয়েকগুণ। পরে সরকার বিষয়টিতে জোড় দিলে কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে বাজার। এরপর আবার কেন্দ্রীয়ভাবে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পিয়াজ মজুদ করে বেশি দামে বিক্রি করা শুরু করেন। যা দেশের বিভিন্ন যায়গায় এখনো অব্যাহত রয়েছে।

এ অবস্থায় সিলেটে পিয়াজের কেজি ২০০-২৫০ টাকা পর্যন্ত উঠে যায়। এই সুযোগে সিলেটের কিছু ব্যবসায়ীরা প্রশাসনের সঙ্গে যোগসাজসে ভারত থেকে অবৈধপথে পিয়াঁজ আনা শুরু করেন। যেটিতে সিলেটের ভাষায় ‘বুঙ্গা’ বলা হয়। এতে বাজারে পিয়াজের সংকট কিছুটা নিরসন হলেও বিপাকে পরেন বৈধভাবে পিয়াজ আনা ব্যবসায়ীরা। আর সরকার হারিয়েছে বড় অঙ্কের রাজস্ব। অনেকেই কোটি কোটি টাকা লোকসানের আশঙ্কা করছেন।

এখনো পিয়াজের বাজার চড়া থাকায় প্রতিদিনই সিলেটের বাজারে ঢুকছে কয়েক হাজার কেজি অবৈধভাবে ভারত থেকে আনা পিয়াজ। আজ মঙ্গলবারও প্রায় ৪৫টি মিনি ট্রাকে করে অবৈধ পিয়াজ সিলেটের বাজারে ঢুকেছে বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

এ ব্যাপারে কালিঘাটের আড়তদার কাশেম, সাহেব আলী ও মজিদ জানান, ভারত পিয়াজ রফতানি বন্ধ করায় তারা মিশর, চীন, মিয়ানমারসহ বিভিন্ন দেশ থেকে বেশি দামে পিয়াজ আমদানি করেছেন। কিন্তু হঠাৎ করে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অবৈধভাবে ভারত থেকে পিয়াজ নিয়ে আসায় বাজারে ধ্বস নেমেছে। এতে বৈধপথে পিয়াজ আমদানীকারকরা বড় ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন। এই কয়েক দিনে তাদের ১০-১২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলেও জানান তারা।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য