Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জুলাই, ২০১৯ ২২:১৫

উন্নয়ন প্রকল্প এলাকায় প্রকৌশলীদের অবস্থান করার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

উন্নয়ন প্রকল্প এলাকায় প্রকৌশলীদের অবস্থান করার নির্দেশ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) চলমান সকল উন্নয়ন প্রকল্পে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীসহ সর্বস্তরের কর্মকর্তাদেরকে প্রকল্প এলাকায় বাধ্যতামূলকভাবে অবস্থান করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রবিবার দুপুরে চসিকের ৪৮ তম সাধারণ সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন এ নির্দেশ দেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়ুয়া, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম। সভা সঞ্চালনা করেন চসিক সচিব আবু সাহেদ চৌধুরী।  

সিটি মেয়র বলেন, উর্ধতন কর্মকর্তার উপস্থিতির কারণে অধীনস্থ কর্মকর্তাদের দায়িত্ববোধ বাড়িয়ে দেয়। স্বচ্ছতা ও কাজের গুণগত মান নিশ্চিত হয়। তাই চসিক তত্ত্বাধায়ক প্রকৌশলীসহ তার নিচের সকল কর্মকর্তাদের প্রকল্প স্থানে অবস্থান করার জরুরি বলে আমি মনে করছি।

তিনি বলেন, আসন্ন ঈদুল আযহায় কোরবানি পশুর বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় চসিক ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। ঈদের দিন বিকাল ৪টার মধ্যে পুরো নগরীতে কোরবানীর দিন জবাইকৃত পশুর বর্জ্য অপসারণ, ঈদের পরের দিন শেষ রাত পর্যন্ত বর্জ্য অপসারনের লক্ষে ৪১টি ওয়ার্ডকে উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম চার জোনে ভাগ করে কাউন্সিলর ও কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে ৪টি ‘উপ-কমিটি’ এবং একটি কেন্দ্রীয় কমিটি গঠন হয়েছে। তাছাড়া ওইদিন পরিচ্ছন্ন বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়। বর্জ্য অপসারন কার্যক্রম নিশ্চিতকল্পে কোরবানি ঈদের দিন সকাল ৯ টার মধ্যে দায়িত্বে নিয়োজিত স্থায়ী ও অস্থায়ী পরিচ্ছন্ন কর্মীদের স্ব স্ব ওয়ার্ডে উপস্থিত থাকতে হবে।’

সিটি মেয়র বলেন, নগরে বর্তমানে ক্র্যাশ প্রোগ্রাম চলছে। প্রতিদিন ১৬১ জন কর্মী নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে ও বিভিন্ন স্থানে ওষুধ ছিটাচ্ছে। এ ছাড়া রয়েছে সচেতনতা সৃষ্টিতে গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন, মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ। প্রতিটি ওয়ার্ডের ঝোপঝাড় পরিস্কার ও নালা-নর্দমায় যেখানে মশা বংশবিস্তার করে, সেখানেও ওষুধ ছিটানো হচ্ছে। এ সব বহুমুখী কর্মসূচির কারণে মশার উপদ্রব ও ডেঙ্গুর প্রকোপ নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার


আপনার মন্তব্য