শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জুন, ২০১৯ ২৩:৩০

বরিশালে ইলিশবোঝাই ট্রলারের সারি

বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা মানছেন না জেলেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে ইলিশবোঝাই ট্রলারের সারি

বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা মানছেন না জেলেরা। তারা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাগরে মাছ ধরছেন। কিন্তু ওই মাছ উপকূলীয় এলাকায় বিক্রি করতে সমস্যা হওয়ায় ট্রলারবোঝাই করে হাজার হাজার মণ ইলিশ নিয়ে আসা হচ্ছে বরিশাল ইলিশ মোকামে। নিষিদ্ধকালীন আহরিত মাছ নিয়ে কোটি টাকার গোপন বাণিজ্যের অভিযোগ রয়েছে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে।

বিভাগীয় মৎস্য কার্যালয় সূত্র জানায়, গত দুই মাস মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার অভয়াশ্রমে ইলিশ মাছ শিকার নিষিদ্ধ ছিল। ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য সরকার গত ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন সাগরে ইলিশ শিকার নিষিদ্ধ করে। এ নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। সাগরে ইলিশ শিকার বন্ধ থাকায় গত প্রায় এক মাস ধরে প্রতিদিন গড়ে অভ্যন্তরীণ নদী থেকে আহরিত একশ থেকে দেড়শ মণ ইলিশ আসছিল বরিশাল মোকামে। কিন্ত গত রবিবার হঠাৎ করে সাগরে মাছ ধরা ২২টি ট্রলার আসে পোর্ট রোড মোকামে। প্রতিটি ট্রলারই ছিল ইলিশবোঝাই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আড়তদাররা জানান, সাগরে মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা থাকায় পটুয়াখালীর মহিপুর ও হাজীপুর, বরগুনার পাথরঘাটা এবং ভোলার ইলিশ মোকামে প্রশাসনের কঠোর তদারকি রয়েছে। এ কারণে ইলিশবোঝাই ট্রলারগুলো নির্বিঘ্নে চলে আসছে বরিশাল মোকামে। প্রশাসনিক তদারকি না থাকায় গত রবিবার ২২টি এবং গতকাল সোমবারও বরিশাল মোকামে এসেছে ৩টি সামুদ্রিক ট্রলার।

গতকাল সকালে বরিশাল ইলিশ মোকামে গিয়ে দেখা গেছে, সাগর থেকে আসা ট্রলার থেকে ইলিশ মাছ নামানো হচ্ছে। শ্রমিকরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন ইলিশ মাছ নামানো ও পরিমাপের কাজে। এ বোটগুলো সব সাগর থেকে এসেছে বলে জানান জেলে ও স্থানীয়রা। গত রবিবার ওইসব ট্রলার থেকে প্রায় দেড় হাজার মণ এবং গতকালও প্রায় ৪শ মণ ইলিশ এসেছে বরিশাল মোকামে। বরিশাল জেলা মৎস্য শ্রমিক ইউনিয়নের এক নেতা জানান জানান, একবার জাটকা রক্ষার নামে মাছ ধরা বন্ধ করা হয়। একবার মা ইলিশ রক্ষার নামে মাছ ধরা বন্ধ করা হয়। এরপর আবার দুই মাস সাগরে ইলিশ ধরা বন্ধের ঘোষণায় জেলেরা হতাশ।

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর