শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:৩৬

বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল ১২০০ শয্যায় উন্নীত

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল ১২০০ শয্যায় উন্নীত

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল ৫০০ শয্যা থেকে ১২০০ শয্যায় উন্নীত হলো। এখন শুধু চিকিৎসক ও জনবল নিয়োগ কাঠামো পূরণ হলে ১২০০ শয্যার হাসপাতালের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে। এদিকে, হাসপাতালের সম্প্রসারণের কাজ প্রায় শেষ হয়েছে।

বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ও বিএমএ বগুড়ার সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডা. রেজাউল আলম জুয়েল জানান, ১৯৯৮ সালে ২৫০ শয্যার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের প্রথম কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল নতুন করে অবকাঠামো নির্মাণের পর ২০০৬ সালে ৫০০ শয্যাবিশিষ্ট শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শহরের অদূরে সিলিমপুরে স্থানান্তর করা হয়। এরপর থেকেই রোগীর চাপ দিন দিন বেড়েছে। প্রায় সব ধরনের চিকিৎসাসেবা  দেওয়ার কারণে হাসপাতালে রোগী ভর্তি হতো দিগুণ। এ নিয়ে চিঠি চালাচালি হওয়ার পর গত ১৮ সেপ্টেম্বর অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয় ব্যয় ব্যবস্থাপনা অধিশাখা এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ১২০০ শয্যায় উন্নীত করার এই আদেশ জারি করে। এর ফলে বগুড়াবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হলো। ১২শ শয্যার হাসপাতালের প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগের পর পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসাসেবা পাবে রোগীরা। তিনি জানান, ১২০০ শয্যার জন্য ইতিমধ্যে হাসপাতালের সম্প্রসারণ করার কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। এতে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৬৪ কেটি টাকা। সাড়ে ৪ তলা থেকে ৭ তলা পর্যন্ত সম্প্রসারণ করা হয়েছে।

 শজিমেক পরিচালকের কার্যালয় সূত্রে জানানো হয়েছে, ৫০০ শয্যার হাসপাতাল হলেও রোগী ভর্তি থাকে প্রতিদিন প্রায় ১৩০০ থেকে ১৪০০। রোগীরা বেড না পেয়ে মেঝেতে শুয়ে চিকিৎসাসেবা নিত। এবার ১২০০ শয্যা হওয়ায় এবং এর প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ পেলে চিকিৎসার মান আরও বৃদ্ধি পাবে। বগুড়া জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সুলতান মাহমুদ খান রনি বলেন, শজিমেক হাসপাতালের শয্যা বর্ধিতকরণসহ আরও উন্নয়নমূলক কাজ চলমান রয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর