শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:১৩

পিয়াজের দাম এখনো চড়া

ধর্মঘটের অজুহাত

নিজস্ব প্রতিবেদক

পিয়াজের দাম এখনো চড়া

হঠাৎ ডাকা পরিবহন ধর্মঘটের অজুহাতে রাজধানীর বাজারগুলোতে বেড়েছে সবজি ও মাছের দাম। প্রকারভেদে সবজি কেজিতে ১০ থেকে ৩০ টাকা আর মাছ ২০ থেকে ১০০ টাকা বেড়েছে। অপরিবর্তিত আছে ডিম, মুরগি ও মাংসের দাম। এদিকে পাইকারি বাজারে প্রতিদিন দেশি-বিদেশি পিয়াজের দাম কমলেও, তার প্রভাব পড়েনি খুচরা বাজারে। এখনো প্রতিকেজি দেশি পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা আর বিদেশি পিয়াজ ১৬০ টাকায়। এ অবস্থায় চাল, ডাল, তেল, পিয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, মজুদ পরিস্থিতি ও বাজারজাত নিয়ে আগামীকাল শিল্প, বাণিজ্য এবং খাদ্যমন্ত্রীর সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসছে এফবিসিসিআই। গতকাল সাপ্তাহিক ছুটির দিনে রাজধানীর বিভিন্ন বাজারের বিক্রেতারা জানান, পণ্য পরিবহন ধর্মঘটের কারণে অনেক জেলা থেকে বাজারে মাল না আসায় ঘাটতি রয়েছে। এতে পাইকারি বাজারে দাম বাড়তি হওয়ায় প্রভাব পড়েছে খুচরাতে। এদিকে রাজধানীর খুচরা বাজারগুলোতে প্রতিকেজি দেশি পিয়াজ ২০০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। আর মিসর, তুরস্ক ও মিয়ানমারের পিয়াজ বিক্রি হয়েছে ১৪০ থেকে ১৭০ টাকায়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শরিফা খান সাংবাদিকদের জানান, পাইকারি ও খুচরা বাজারের মধ্যে পার্থক্য দূর করতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা বাজার  মনিটরিং করছেন। তারা বাজারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছেন। ব্যবধান বেশি হলে জরিমানাও করছেন। রাজধানীর সেগুনবাগিচা, শান্তিনগর, খিলগাঁও, ফকিরাপুল, মতিঝিল টিঅ্যান্ডটি কলোনি কাঁচাবাজারে কেজিতে ১০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত বেড়ে প্রতিকেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকা, গাজর ৭০ থেকে ১০০ টাকা, পটোল ৫০ থেকে ৬০ টাকা, ঝিঙা-ধুন্দল ৭০ থেকে ৮০ টাকা, করলা ৭০ থেকে ৮০ টাকা। অথচ দুই দিন আগেও এসব বাজারে সব সবজির দামই ছিল সহনীয় পর্যায়ে। মালিবাগ বাজারের সবজি বিক্রেতা আরফান মাহমুদ বলেন, আজ পাইকারি বাজারে পণ্য সংকট রয়েছে। অবরোধের কারণে অনেক জেলা থেকে পণ্য আসেনি। এজন্য সেখানে দাম বেশি রয়েছে যার প্রভাব পড়েছে খুচরাতে। তবে তার কথা মানতে নারাজ এ বাজারেরই ক্রেতা হামিদা। তিনি বলেন,  ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটে এই বাড়তি দাম।  মাছের বাজারও বেশ চড়া। আগের বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের চাল। এ অবস্থায় নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, মজুদ পরিস্থিতি ও বাজারজাত নিয়ে করণীয় নির্ধারণে আগামীকাল তিন মন্ত্রীর সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসছে বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশন-এফবিসিসিআই। এই তিন মন্ত্রী হলেন, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ও খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। এফবিসিসিআই জানিয়েছে, ওই বৈঠকে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য চাল, ডাল, গম, তেল, পিয়াজ, রসুন, আদা, হলুদ, মরিচ, গরম মসলা, চিনি, লবণ, মাছ, মাংস ও পোলট্রির বছরব্যাপী চাহিদা, দেশে পণ্যের উৎপাদন, আমদানি, মজুদ-ব্যবস্থা, সরবরাহ ব্যবস্থাপনা ও যৌক্তিক মূল্য নির্ধারণের নির্দেশনা নিয়ে আলোচনা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর