শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০১:৪১

মাদক ও চাঁদাবাজি মামলায় নূর হোসেনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য গ্রহণ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

আলোচিত সাত খুন মামলার ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত প্রধান আসামি নূর হোসেনের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দায়ের হওয়া মাদক ও চাঁদাবাজির তিনটি মামলায় ৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছে আদালত। গতকাল দুপুরে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ (দ্বিতীয়) এর বিচারক শেখ রাজিয়া সুলতানার আদালতে ওই সাক্ষ্য গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৭ সালের ১৬ জানুয়ারি সাত খুন মামলার রায় ঘোষণার পর নূর হোসেনকে কাশিমপুর কারাগারে নেওয়া হয়। সেখান থেকেই তাকে রবিবার বেলা পৌনে ১১টায় কড়া নিরাপত্তায় নারায়ণগঞ্জে আনা হয়। পরে বেলা দেড়টায় কাশিমপুর কারাগারে নেওয়া হয়।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর জাসমিন আহমেদ জানান, অস্ত্র, মাদক, চাঁদাবাজিসহ ৮টি মামলা রয়েছে নূর হোসেনের বিরুদ্ধে। সবই সিদ্ধিরগঞ্জ থানার মামলা। গতকাল দুপুরে আদালতে যে তিন মামলায় সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়, সেগুলোর মধ্যে দুটি মাদক আর একটি চাঁদাবাজির। দুটি মাদক মামলায় দুজন ও চাঁদাবাজি মামলায় তিনজন সাক্ষ্য প্রদান করেন। এ তিন মামলায় গতকাল কার্যক্রম শেষে পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের দিন আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি ধার্য করা হয়।

প্রসঙ্গত, মামলার বিষয়ে জাসমিন আহমেদ জানান, ২০১৪ সালে ৭ খুনের পর নূর হোসেন ভারতে পালিয়ে গেলে তার বৈধ অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল করা হয়। এ ছাড়া, তার সিদ্ধিরগঞ্জের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকটি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। এসব ঘটনায় নূর হোসেনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে ৩টি মামলা করে পুলিশ। এ ছাড়া ২০১৪ সালের ১২ জুন ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে অটোরিকশা চালক সাইদুল ইসলামের মামলায় নূর হোসেন, তার ভাই নূর উদ্দিন, তাদের ভাতিজা শাহজালাল বাদল, লোকমানসহ চারজনকে আসামি করা হয়। এ ছাড়া শিমরাইলে নূর হোসেনের মাদক স্পট থেকে ২৯০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধারের মামলার বাদী পুলিশের এসআই শওকত হোসেন। ২০১৩ সালের ৩০ মে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার হিরাঝিল এলাকার ইকবাল হোসেন নামের এক ব্যক্তির কাছে নূর  হোসেন ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। দাবিকৃত চাঁদা না পেয়ে ইকবালের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুর করে নূর হোসেন ও তার সহযোগীরা। এ ঘটনায় ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে নূর হোসেন, তার ভাতিজা কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করা হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর