শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:২৯

নতুন গন্তব্যে খুলনা শিপইয়ার্ড

তৈরি করছে যুদ্ধজাহাজ

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

নতুন গন্তব্যে খুলনা শিপইয়ার্ড

এক সময়কার মৃতপ্রায় শিল্প প্রতিষ্ঠান খুলনা শিপইয়ার্ড ২০১৮-১৯ অর্থবছরে নিট মুনাফা করেছে ৮১.০২ কোটি টাকা। এর আগে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে প্রতিষ্ঠানটির নিট মুনাফা ছিল ৬৫ কোটি টাকা।

জানা যায়, এরই মধ্যে জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে খুলনা শিপইয়ার্ড দেশে-বিদেশে সুনাম অর্জন করেছে। বিগত দিনে যুদ্ধজাহাজসহ প্রতিষ্ঠানটি ৭৩৮টি জাহাজ নির্মাণ ও ২৩৫০টি মেরামত করেছে। সর্বশেষ পায়রা বন্দরের জন্য নির্মাণ করেছে দুটি পাইলট ভেসেল তেঁতুলিয়া-১ ও ২। সমুদ্র উপকূলে বন্দর ও পোতাশ্রয় সংলগ্ন এলাকায় অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে এক নাগাড়ে দীর্ঘ সময় ধরে এই ভেসেল পাইলটিং কর্মকা- পরিচালনায় সক্ষম। গতকাল নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী খুলনা শিপইয়ার্ডে আনুষ্ঠানিকভাবে ভেসেল দুটি পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষকে হস্তান্তর করেছেন। বর্তমানে এখানে নৌবাহিনীর জন্য ছোট-বড় আরও সাতটি যুদ্ধজাহাজ নির্মাণাধীন রয়েছে।  জানা যায়, ১৯৫৪ সালে স্থাপিত হয় খুলনা শিপইয়ার্ড। চরম অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতিতে একসময় রুগ্ন শিল্পে পরিণত হয় প্রতিষ্ঠানটি। শেষ ১৫ বছরে এর লোকসানের পরিমাণ ছিল ৫৮ কোটি টাকা। তবে সেই অবস্থা এখন আর নেই। ১৯৯৯ সালে বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে হস্তান্তরের পর দক্ষ ব্যবস্থাপনায় লাভজনক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে খুলনা শিপইয়ার্ড। প্রতিষ্ঠানটির ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার কমান্ডার মাইনুল ইসলাম জানান, সর্বশেষ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে খুলনা শিপইয়ার্ড নিট মুনাফা করেছে ৮১.০২ কোটি টাকা।

 বিগত দিনে যুদ্ধ জাহাজসহ ৭৩৮টি জাহাজ নির্মাণ ও ২৩৫০টি জাহাজ মেরামত করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

এদিকে দক্ষ ব্যবস্থাপনায় খুলনা শিপইয়ার্ড স্বতন্ত্র মর্যাদার শিল্প প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে বলে জানালেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্যাপ্টেন এম সাজেদুল করিম। তিনি বলেন, দক্ষ প্রকৌশলী ও জনশক্তি ব্যবহারে খুলনা শিপইয়ার্ড ধারাবাহিক সাফল্য অর্জনের পথে এগিয়ে চলেছে। বর্তমানে নৌবাহিনীর জন্য ছোট-বড় আরও ৭টি  পেট্রোল ক্রাফট (যুদ্ধ জাহাজ) নির্মাণাধীন রয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর