শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:১৭

মাল্টি ভিটামিনের নামে ভয়াবহ প্রতারণা

চট্টগ্রামে সক্রিয় অর্ধশতাধিক চক্র

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম

মাল্টি ভিটামিনের নামে ভয়াবহ প্রতারণা

মাল্টি ভিটামিনের নামে চট্টগ্রামজুড়ে চলছে ভয়াবহ প্রতারণা। দালাল, চিকিৎসক এবং অসাধু ব্যক্তি আটা দিয়ে তৈরি কথিত ভিটামিনের নামে মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। কথিত এসব ভিটামিনে নেই কোনো ওষুধি উপাদান। ফলে এ জাতীয় ওষুধ কিনে প্রতারিত হচ্ছেন রোগীরা। সৎ চিকিৎসকরা এ ওষুধকে আখ্যা দেন অখ্যাত কোম্পানির ডিব্বা ভিটামিন। চট্টগ্রামজুড়ে অর্ধশতাধিক কোম্পানি সক্রিয় এ জাতীয় ভিটামিন তৈরি ও বিক্রির সঙ্গে। এগুলোকে ফুড সাপ্লিমেন্ট বলায় আইনগত ব্যবস্থাও নিতে পারে না ঔষধ প্রশাসন। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘কথিত এসব মাল্টি ভিটামিনের বিরুদ্ধে আমরা চাইলেই ব্যবস্থা নিতে পারি না। তবে এ বিষয়ে ঔষধ প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করব।’ অনুসন্ধানে জানা যায়, চট্টগ্রামে গড়ে উঠেছে কথিত মাল্টি ভিটামিনের অর্ধশতাধিক কোম্পানি। এসব কোম্পানির সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছেন কিছু চিকিৎসক, দালাল ও ফার্মেসির মালিক। এ চক্রের সদস্যরা ঢাকার জিঞ্জিরা থেকে আটা দিয়ে তৈরি কথিত মাল্টি ভিটামিন ক্যাপসুল, কৌটাসহ যাবতীয় উপকরণ কিনে আনেন। এরপর ভুয়া কিছু বিদেশি কোম্পানির নাম ও ঠিকানার লেভেল লাগিয়ে তৈরি করে মাল্টি ভিটামিন। পরবর্তীতে দালাল চক্র ও ফার্মেসি মালিকদের সমন্বয়ে ডিব্বাগুলো বিদেশি মাল্টি ভিটামিনের নামে বাজারজাত করা হয়। নগরীর নির্দিষ্ট ফার্মেসি ছাড়া এসব ওষুধ আর কোথাও পাওয়া যায় না। এসব ভিটামিন বিক্রির পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান রাখেন কিছু অসাধু চিকিৎসক। তারা টাকার বিনিময়ে প্রেসক্রাইব করেন ডিব্বা জাতীয় কথিত মাল্টি ভিটামিন। এসব ওষুধ লেখার জন্য চিকিৎসকরা নেন ভিন্ন ভিন্ন হারে টাকা। তবে তা নির্ভর করে চিকিৎসকদের পরিচিতির ওপর। সুপরিচিত কোনো চিকিৎসক এসব ওষুধ প্রেসক্রাইব করলে প্রতি কৌটার জন্য পান ১৫০ থেকে ২০০ টাকা। অপরিচিত কোনো চিকিৎসক হলেও তাকে সর্বনিম্ন ১০০ টাকা দেওয়া হয়।

চট্টগ্রামের এক প্রথিতযশা চিকিৎসক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রায় সময় কথিত মাল্টি ভিটামিন প্রেসক্রাইব করার জন্য অফার আসে। কোম্পানিগুলো থেকে এমনও অফার দেওয়া হয়েছে প্রতি কৌটার জন্য ২০০ টাকা দেওয়া হবে। কিন্তু এসব মাল্টি ভিটামিনে কোনো ওষুধি গুণ নেই। এটা প্রেসক্রাইব করলে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণা করা হবে। তাই তাদের প্রস্তাবে রাজি হইনি।

নগরীর সিটি গেট এলাকার শাহজাহান নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, কিছু দিন আগে এক চিকিৎসক আমার মায়ের জন্য বিদেশি ভিটামিন ওষুধ প্রেসক্রাইব করেন। ওই ওষুধ অনেক ফার্মেসিতে খুঁজেও পাইনি। পরে চিকিৎসককে ফোন করলে তিনি একটা ফার্মেসির নাম বলেন। সেখান থেকে ওই ওষুধ সংগ্রহ করি। কিন্তু পরবর্তীতে পরিচিত এক চিকিৎসকের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হলে তিনি কথিত এ ভিটামিনের গোমর ফাঁস করেন। পরে এই ওষুধ আর মাকে খাওয়াইনি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর