শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৩০ মে, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ মে, ২০২০ ০১:৩৯

প্লাজমা থেরাপিতে বাড়ছে আগ্রহ

খুলনায় ডাটাবেজ তৈরির উদ্যোগ

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

খুলনায় ডাটাবেজ তৈরির উদ্যোগ

খুলনায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় প্রথমবারের মতো প্লাজমা থেরাপি (রক্তরস প্রয়োগ) চালু হয়েছে। সদ্য করোনা থেকে মুক্ত একজনের দেহ থেকে রক্ত নিয়ে বিশেষ প্রক্রিয়ায় রক্তের সেল আলাদা করে রক্তরস দেওয়া হচ্ছে চিকিৎসাধীন করোনা রোগীকে। এতে করোনা থেকে মুক্ত ব্যক্তির শরীরের ভাইরাস অ্যান্টিবডি (রোগ প্রতিরোধ) করোনা আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রে প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করবে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, এরই মধ্যে খুলনায় গত ২৮ মার্চ প্রথম একজন করোনা আক্রান্ত রোগীকে এ ধরনের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ৭২ ঘণ্টা পর এ প্লাজমা থেরাপির ফলাফল বোঝা যাবে। প্লাজমা থেরাপিতে ওই রোগী সুস্থ হলে পর্যায়ক্রমে অন্য রোগীদের ক্ষেত্রেও এই চিকিৎসা পদ্ধতি ব্যবহার করা হবে।  জানা যায়, খুলনা বিভাগে এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪৭৬ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৯৭ জন। মারা গেছেন ৮ জন। হাসপাতালে এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৯২ জন। খুলনা জেলা সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহম্মেদ বলেন, ইতিমধ্যে সুস্থ হওয়া রোগীদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ করে ডাটাবেজ তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। প্লাজমা থেরাপির সুফল পাওয়া গেলে তাদের রক্ত সংগ্রহ করে আক্রান্ত রোগীর শরীরে ভাইরাস অ্যান্টিবডি প্রয়োগ করা হবে। খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান,  প্লাজমা প্রয়োগে অ্যান্টিবডি রোগীর দেহে গেলে ভাইরাসটি অনেকাংশে নিষ্ক্রিয় হবে এবং রোগী দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে।

এতে আক্রান্ত ব্যক্তির রক্তের অ্যান্টিবডি চলে আসে এবং তা করোনাভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধের ফলে রোগী সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর