শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২৩:২২

এনআইডি জালিয়াতি ঠেকাতে সাঁড়াশি অভিযানে নামছে ইসি

অফিসে অফিসে বসছে সিসিটিভি

নিজস্ব প্রতিবেদক

এনআইডি জালিয়াতি ঠেকাতে সাঁড়াশি অভিযানে নামছে ইসি

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) জালিয়াতি ঠেকাতে দেশব্যাপী সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন। এনআইডি কাজ-সংশ্লিষ্ট সব অফিসে সিসিটিভি বসানোর চিন্তাও করছে কমিশন।

এদিকে রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকাভুক্তি ও জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি বন্ধে গঠিত তদন্ত কমিটি শিগগির প্রতিবেদন দেবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাইদুল ইসলাম। তিনি জানান, জালিয়াত চক্রে জড়িতদের শনাক্ত করে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ছাড়া এনআইডি জালিয়াতিতে সম্পৃক্ত ইসির অস্থায়ী কর্মী ডেটা এন্ট্রি অপারেটরদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

গতকাল দুপুরে ‘দুর্নীতি ও এনআইডি জালিয়াতি রোধে নেওয়া পদক্ষেপ’ তুলে ধরতে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, এরই মধ্যে দেশব্যাপী এনআইডি সেবা কার্যক্রম তদারকিতে সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনার জন্য পাঁচ সদস্যবিশিষ্ট চারটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে দেশব্যাপী ১০টি টিমের মাধ্যমে সাঁড়াশি ও ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করা হবে।

দ্বৈত ভোটারের বিষয়ে তৎপরতা : ১১ কোটি ভোটার তালিকাভুক্তির সময় হালনাগাদে প্রায় ২ লাখের মতো দ্বৈত ভোটার শনাক্ত করে নির্বাচন কমিশন। তাদের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান এনআইডি উইং মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. সাইদুল ইসলাম। তিনি বলেন, আমরা এরই মধ্যে ২ লাখ ৭ হাজার দ্বৈত ভোটার শনাক্ত করেছি। যারা দ্বৈত হয়েছেন আমরা তাদের নোটিফাইড করছি। এসএমএসের মাধ্যমেও তাদের জানিয়ে দিচ্ছি। তবে সবার মোবাইল নম্বর না থাকায় উপজেলা নির্বাচন অফিসের মাধ্যমে তাদের অবহিত করার ব্যবস্থা করছি। দ্বৈত ভোটার পাওয়া গেলে প্রাথমিকভাবে বিধি মোতাবক প্রথমটি রেখে পরবর্তী ভোটার তথ্য ব্লক করে দেওয়া হয়। উদ্দেশ্যমূলকভাবে তথ্য গোপন করে দ্বৈত ভোটার হওয়ার প্রমাণ পাওয়ায় ৯৩৭ জনের এনআইডি লক করাসহ ?আইন অনুসারে নির্বাচন কমিশন ফৌজদারি মামলা দায়ের করার নির্দেশনা দিয়েছে।’


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর