শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ জুন, ২০২১ ০১:৩৪

২,৫৭৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ১১ দর প্রস্তাব অনুমোদন

সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

২ হাজার ৫৭৯ কোটি টাকা ব্যয়ের ১১টি দরপ্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি প্রস্তাব হলো- ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম নিরসনে এনজিওর মাধ্যমে ১ লাখ শিশুকে ৬ মাস মেয়াদি উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা এবং ৪ মাস মেয়াদি দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদান করা। এ ছাড়া ইতিপূর্বে অনুমোদিত পাঁচটি ক্রয় প্রস্তাবের ব্যয় বৃদ্ধির (ভেরিয়েশন) প্রস্তাবও রয়েছে। গতকাল সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত ‘সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র ভার্চুয়াল বৈঠকে এসব প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠক শেষে অতিরিক্ত সচিব শামসুল আরেফিন এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের জানান, বৈঠকে এনজিওদের মাধ্যমে  ‘বাংলাদেশে ঝুঁকিপূর্ণ শিশুশ্রম নিরসন’ (চতুর্থ পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় ১ লাখ শিশুকে ৬ মাস মেয়াদি উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা এবং ৪ মাস মেয়াদি দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদানের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এটি বাস্তবায়নে ৭৫৭টি এনজিওর কাছ থেকে প্রস্তাব পাওয়া যায়। এর মধ্য থেকে ১১২টি এনজিও মনোনীত করা হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১৬০ কোটি টাকা। তিনি জানান, বৈঠকে ‘সাসেক সড়ক সংযোগ প্রকল্প-২’-এর আওতায় ‘এলেঙ্গা-হাটিকমরুল-রংপুর মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ’ প্রকল্পের দুটি প্যাকেজের কাজ বাস্তবায়নে দুটি পৃথক প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্যাকেজ নম্বর ডব্লিউপি-১৩-এর আওতায় হাটিকমরুল ইন্টারচেঞ্জ নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ‘চায়না রেলওয়ে কনস্ট্রাকশন ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যুরো গ্রুপ কোম্পানি লিমিটেড’কে মনোনীত করা হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ৭৪৩ কোটি ২৮ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। অন্যদিকে প্যাকেজ নম্বর ডব্লিউপি-০৫-এর পূর্ত কাজ ও রক্ষণাবেক্ষণে ‘আবদুল মোনেম লিমিটেড’কে মনোনীত করা হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ৬০১ কোটি ১০ লাখ ৯৫ হাজার টাকা। অতিরিক্ত সচিব জানান, বৈঠকে ‘ঢাকা এনভায়রনমেন্টাল সাসটেইনেবল ওয়াটার সাপ্লাই’ প্রকল্পের প্যাকেজ-৩ দশমিক ১-এর আওতায় ‘রামপুরা থেকে ভাটারা হয়ে এয়ারপোর্ট রোড, উত্তরা, গুলশান, বনানী, কচুক্ষেত পর্যন্ত’ ২৫ কিলোমিটার পরিশোধিত পানির ট্রান্সমিশন লাইন স্থাপনের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

 

এ কাজটি পেয়েছে চীনা প্রতিষ্ঠান ‘চায়না জিও-ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন’। এতে ব্যয় হবে ৫৮৯ কোটি ৩১ লাখ ৯২ হাজার টাকা। তিনি জানান, বৈঠকে ‘গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কে পণ্য পরিবহনের উৎসমুখে এক্সেল লোড নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র স্থাপন’ প্রকল্পের প্যাকেজ নম্বর পিডব্লিউ-০১-এর পূর্ত কাজ সম্পাদনে ‘ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড’কে ঠিকাদার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ৩০১ কোটি ৩৫ লাখ ৬১ হাজার টাকা।

অতিরিক্ত সচিব জানান, এ ছাড়া বৈঠকে ‘ন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন মনিটরিং সেন্টার’-এর জন্য একটি ‘ভেহিকেল মাউন্টেড মোবাইল ইন্টারসেপ্টর অ্যান্ড রিলেটেড সার্ভিসেস’ ক্রয়ের লক্ষ্যে ‘সীমিত দরপত্র পদ্ধতি’তে সুইজারল্যান্ডের ‘তরু গ্রুপ লিমিটেড’কে মনোনীত করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির লোকাল এজেন্ট হচ্ছে ঢাকার ‘স্মার্ট এসসিএম সলিউশন’। এতে ব্যয় হবে ৬৫ কোটি ৫৬ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। তিনি জানান, অন্যান্যের মধ্যে বৈঠকে ইতিপূর্বে অনুমোদিত পাঁচটি ক্রয় প্রস্তাবের সংশোধিত ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এসব প্রকল্পের ব্যয় প্রায় ১২১ কোটি টাকা বাড়ানো হয়েছে।

 

এই বিভাগের আরও খবর