বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ টা

এক বছরের মধ্যে করোনার টিকা উৎপাদনের সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

আগামী এক বছরের মধ্যে দেশে সরকারিভাবে করোনাভাইরাসের টিকা উৎপাদন ও বোতলজাতের সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। তবে গত আগস্ট মাসে ছয় মাসের মধ্যে টিকা উৎপাদন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সুপারিশ করেছিল কমিটি। একই সঙ্গে এ বিষয়ে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা পরিহারের সুপারিশ করা হয়। এ সময় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, দেশে টিকা উৎপাদন, ব্যবহার, পরিবহন ও সাশ্রয়ী বিবেচনায় প্রোটিন টিকা উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এজন্য ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের আবিষ্কৃত প্রোটিন টিকা তৈরির প্রযুক্তি হস্তান্তরের আলোচনা চলছে। রাশিয়ার স্পুটনিক-ভি টিকা তৈরির প্রযুক্তি হস্তান্তর নিয়েও আলোচনা চলছে। এ ছাড়া টিকা তৈরির  কাঁচামাল আমদানি ও প্রযুক্তি হস্তান্তরের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি ডায়াডিকের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সইয়ের জন্য একটি খসড়া তৈরি করা হয়েছে। সংসদ ভবনে গতকাল অনুষ্ঠিত ‘স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ১২তম বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বাংলাদেশে করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনের বাস্তব পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করা হয়। কমিটি বাস্তব পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে মন্ত্রণালয়কে এক বছরের মধ্যে পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সুপারিশ করে। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি শেখ ফজলুল করিম সেলিম। স্বাস্থ্যমন্ত্রী  জাহিদ মালেক, আ ফ ম রুহুল হক, মুহিবুর রহমান মানিক, মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরী, মো. আবদুল আজিজ, সৈয়দা জাকিয়া নুর, রাহগির আলমাহি এরশাদ ও মো. আমিরুল আলম মিলন বৈঠকে অংশ নেন। বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়, টিকা তৈরির মূল যন্ত্রপাতি ইউরোপ, আমেরিকা ও জাপান থেকে এবং অন্যান্য যন্ত্রপাতি চীন, দক্ষিণ কোরিয়া ও তাইওয়ান থেকে আমদানি করা হবে। এ জন্য টিকা উৎপাদনের লক্ষ্যে যন্ত্রপাতি উৎপাদন ও সরবরাহকারী বিভিন্ন বিদেশি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রাক্কলিত দর প্রস্তুত করা হয়েছে।

সংসদের গণসংযোগ বিভাগ জানায়, কমিটি দ্রুতগতিতে দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী কার্যকর ও নিরাপদ টিকা উৎপাদনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করে।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি শেখ ফজলুল করিম সেলিম সাংবাদিকদের বলেন, আমরা প্রথম যখন সুপারিশ করি তারপরে কয়েক মাস চলে গেছে। এসেনশিয়াল ড্রাগসের গোপালগঞ্জ শাখায় জমি আছে। সেখানে আমরা টিকা বোতলজাত করতে পারব। টিকা উৎপাদনের জন্য আরও জায়গা লাগবে, সেই জায়গা আমরা অধিগ্রহণ করে নেব। এ জন্য প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) করতে হবে। একজন পরামর্শক নিয়োগ দিতে হবে। কোনো দেশ থেকে কাঁচামাল আসবে, সেসব ঠিক করতে হবে। যন্ত্রপাতি কোথা থেকে আসবে, সেগুলো ঠিক করতে হবে। এগুলোর জন্য একটু সময় লাগবে। সে জন্য আমরা এক বছর বলেছি।

বৈঠকে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক, বিএমএ, কভিড পরামর্শক কমিটি ও স্বাচিপের সভাপতিসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

সর্বশেষ খবর