শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১১:১০
আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১১:১৮

বাহরাইনে করোনা আক্রান্ত ৩৩ জন শনাক্ত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

বাহরাইন প্রতিনিধি

বাহরাইনে করোনা আক্রান্ত ৩৩ জন শনাক্ত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

বাহরাইনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ৩৩ জনকে শনাক্ত করেছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তাদেরকে একটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দলের তত্ত্বাবধানে স্থানীয় ইব্রাহিম খলিল কানু কমিউনিটি মেডিকেল সেন্টারে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন করে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। তবে রোগ মুক্তিতে ৩৩ জনের সবার ইতিবাচক লক্ষণ দেখা যাচ্ছে বলে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম গাল্ফ ইনসাইডার ও ডিপেন্ডে সংক্রামক রোগের পরামর্শ দাতা এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রধান নিয়ন্ত্রক ডা. সাফা আল খাওয়াজার বরাত দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে।

এতে বলা হয়, একটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল রোগীদেরকে বিশ্বব্যাপী মেডিকেল প্রোটোকলের সাথে সামঞ্জস্য রেখে গুণগত মানের সেবা চালিয়ে যাচ্ছে। এখন পর্যন্ত কোন মৃতের সংবাদ কিংবা কোন বাংলাদেশি আক্রান্তের সংবাদ পাওয়া যায়নি। এটিকে ঘিরে নানা রকম ব্যবস্থা হাতে নিয়েছে এবং সবাইকে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তের পর পর জোর তৎপরতায় ও পরীক্ষা-নীরিক্ষা চালিয়ে দুই দিনে ৩৩ জন শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছেন তারা। এদের মধ্যে ইরান, দুবাই, কুয়েত ও সৌদি আরব ভ্রমণকারীরা রয়েছে। সচেতনতাই এই ভাইরাস থেকে রক্ষার উপায় বলে বাহরাইন সরকার, বাংলাদেশ দূতাবাস, বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার কমিউনিটি, বাংলাদেশ সোসাইটি ও সমাজসহ বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ সচেতনতামূলক পরামর্শ ও কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

দেশটিতে সবার মাঝে করোনার আতঙ্ক বিরাজ করছে। এ অবস্থায় ব্যাপক সতর্কতা ও ব্যবস্থা হাতে নিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার থেকে ৪৮ ঘণ্টার জন্য দুবাই, শারজা থেকে সমস্ত ফ্লাইট পরবর্তী ঘোষণা পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করেছে নাগরিক বিমান বিষয়ক কর্তপক্ষ। এছাড়া অন্যান্য দেশের ফ্লাইট সীমিত করেছে। স্থানীয় কিন্ডারগার্টেন, স্কুল, কলেজসহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো দুই সপ্তাহের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। নৌ পথ, স্থল বন্দর, বিমান বন্দর ও ইমিগ্রেশন স্বাস্থ্য ডেক্স সমূহে রোগের সার্ভে লেন্স জোরদার করেছে সরকার। হোটেল, সুপার মার্কেট, বিমান বন্দর, ইমিগ্রেশন নিরাপদ ও ভাইরাস মুক্ত করতে নানা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। একই সাথে খাদ্য, বাসস্থান, রাস্তায় চলাচলের সময় প্রয়োজনীয় নির্দেশগুলো অনুসরনের ব্যাপারে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে বিভিন্ন মাধ্যমে। এ দিকে দেশটিতে বসবাসরত সকল অভিবাসীরা নিজেকে ভাইরাসমুক্ত রাখতে মাস্ক ও মূল্য বৃদ্ধির শঙ্কায় প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জন্য ছুটোছুটি করছে। তবে সংকট দেখা দিয়েছে মাস্কের। 

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে মাস্ক বিতরণের উদ্যোগ নিয়ে ফার্মেসিগুলোতে মাস্ক বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে বলে জানিয়েছে ফার্মেসি কতৃপক্ষ। এ ব্যাপারে বাংলাদেশিদের আতঙ্ক ও উৎকণ্ঠা দূর করতে বাহরাইনে বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে দূতাবাসের অনুবাদক আশরাফের উপস্থাপনায় বাংলাদেশি ডা. রিপাতের মাধ্যমে সচেতনতামূলক পরামর্শ ও নানা দিকনির্দেশনা দেয়া হয়েছে। একই ভাবে সচেতনতা ও পরামর্শ দিয়েছেন বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার কমিউনিটির পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও প্রবাসীর পরামর্শক তাজ উদ্দিন সিকান্দার, লিন্নাস মেডিকেল সেন্টারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশি ডা. জাহাঙ্গীর আলম ও সোসাইটির পক্ষে ডা. পি কে আবির চৌধুরী বার বার ফেসবুক লাইভে সবাইকে সচেতন করছেন। 

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব

 


আপনার মন্তব্য