শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:১৩
আপডেট : ২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:১৭
প্রিন্ট করুন printer

একজনের তিন ডোজ টিকা নেওয়ার খবর মিথ্যা, খোঁজা হচ্ছে সেই ব্যক্তিকে: বিএসএমএমইউ

অনলাইন ডেস্ক

একজনের তিন ডোজ টিকা নেওয়ার খবর মিথ্যা, খোঁজা হচ্ছে সেই ব্যক্তিকে: বিএসএমএমইউ
সৌদি প্রবাসী ওমর ফারুক। ছবি- সংগৃহীত।
Google News

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) টিকাদান কেন্দ্রে সৌদি প্রবাসী ওমর ফারুক নামক এক ব্যক্তিকে একই দিনে করোনাভাইরাসের তিন ডোজ টিকা দেওয়ার যে খবর সামনে এসেছে তা ঠিক নয় বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

একসঙ্গে তিন ডোজ টিকা নেওয়ার এমন খবর মিথ্যা ও গুজব বলে দাবি করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) রাতে টেলিফোনে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তিনি।এদিকে,  'অভিযোগকারী' টিকাগ্রহণকারী ওই ব্যক্তিকে খুঁজে বের করার চেষ্টার পাশাপাশি এই 'অপপ্রচারের' বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলছে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষ।

বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, বিষয়টি আমার নজরে এসেছে। আমি সংশ্লিষ্টদের ডেকেছিলাম। এক ব্যক্তি তিন ডোজ টিকা নিতে পারেন না। এটা সম্ভব না। কারণ নিবন্ধন দেখেই টিকা দেওয়া হয়। এমন ঘটনা ভুল খবর। 

তিনি আরও বলেন, ওই ব্যক্তিকে নিয়ে আসার জন্য বলেছি। তিন ডোজ টিকা নেওয়া ব্যক্তিকে খুঁজে বের করা হবে। লোকটি পাগল হতে পারে। তাকে খুঁজে বের করা হবে। সুস্থ মানুষের পক্ষে এমন ঘটনা ঘটানো সম্ভব না।

এর আগে, নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা ওমর ফারুক সৌদি আরবে যাওয়ার আগে করোনার টিকা নিতে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন। এসময় না বুঝেই তিনটি বুথ থেকে তিন ডোজ টিকা নেন বলে জানান এ প্রবাসী। 

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে ওমর ফারুক বলেন, আমি যখন টিকা কেন্দ্রে ঢুকলাম তখন আমাকে একজন বলল ডান সাইডের কর্নারে যেতে। ওইখানে যখন টিকা দেওয়া শেষ হলো জিজ্ঞেস করলাম, কোথায় যাব? উনি বলল, সামনের দিকে। সামনে আসলাম, ওইখানেও একটা টিকা দিল। ওনাকে জিজ্ঞাস করলাম কোথায় যাব উনিও বলল সামনের দিকে যেতে। সামনে আসলাম আর কিছু জিজ্ঞেস করে নাই। আরেকটা টিকা দিয়ে দিছে। মোট তিনবার টিকা দিয়েছে। বাইরে এসে যখন বাকিদের জিজ্ঞেস করলাম আপনার কয়বার টিকা দিয়েছে, ওনারা বলল একবার টিকা দিয়েছে।

এরপর ওই ব্যক্তিকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে বলেও গণমাধ্যমে খবর আসে। এই ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেয়।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ আল সিফাত

এই বিভাগের আরও খবর