শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ নভেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫৪

ডায়াবেটিস নির্মূলের ওষুধ বিক্রির নামে প্রতারণা

আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে : সিভিল সার্জন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

ডায়াবেটিস নির্মূলের ওষুধ বিক্রির নামে প্রতারণা

‘সাত দিন সেবনে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ। ছয় মাসে চিরতরে নির্মূল !’ এমন প্রচারণা করে চট্টগ্রামজুড়ে নতুন ফাঁদ পেতে প্রতারণা করছে ‘তাহরিম ডায়াবেটিকস এ- টক্সিন সেন্টার’ নামের একটি হারবাল কোম্পানি। প্রশাসনের নাকের ডগায় ওপেন সিক্রেট চলছে এ প্রতিষ্ঠানের রমরমা বাণিজ্য। চট্টগ্রামের অলিগলি এবং গ্রামগঞ্জে সবখানেই বিকিকিনি হচ্ছে ডায়াবেটিসের এ ‘মহৌষধ’। এত প্রতারিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। বিশেষজ্ঞদের দাবি—ডায়াবেটিস চিরতরে নির্মূল করা কখনো সম্ভব নয়। ডায়াবেটিস নির্মূলের ওষুধ এখনো আবিষ্কার হয়নি। কেউ যদি নির্মূলের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিক্রি করে তা প্রতারণা ছাড়া কিছুই নয়। চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, ‘ডায়াবেটিস নির্মূলের ওষুধ এখনো আবিষ্কার হয়নি। কেউ যদি নির্মূলের নামে ওষুধ বিক্রি করে তা হবে প্রতারণা। যারা এ ধরনের কথিত নির্মূলের ওষুধ বিক্রি করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ ডা মোহাম্মদ আবু তৈয়ব বলেন, ‘কথিত ডায়াবেটিস নির্মূলের এ ওষুধ খেয়ে রোগ তো নির্মূল হবে না। উল্টো নানান শারীরিক সমস্যা দেখা দেবে। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের এ ধরনের ওষুধ পরিহার করা উচিত।’ অনুসন্ধানে জানা যায়, কথিত এ মহৌষধ বিক্রির প্রচারণায় রয়েছে কথিত কিছু রোগী, ফার্মেসি মালিক এবং এজেন্ট। তারা প্রচারণাকালে দাবি করে ইন্ডিয়া এবং থাইল্যান্ড হারবাল ফর্মুলায় তৈরি ‘ডায়াকিল ক্যাপসুল’ এবং ‘ডায়াক্রাস পাউডার’ নামে এ দুটি ওষুধ শরীরে নিজে থেকেই ইনসুলিন তৈরি করে। ছয় মাসের মধ্যেই চিরতরে ডায়াবেটিস নির্মূল হবে এমন দাবি করা হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর