Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০২:০৫

রূপগঞ্জে হত্যা করে নিহতের নামেই মামলা, গ্রেফতার ৯

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি

রূপগঞ্জে হত্যা করে নিহতের নামেই মামলা, গ্রেফতার ৯

ইকবাল হোসেন নামে এক কর্মচারীকে হত্যা করে উল্টো তার নামেই সোহেল মিয়া নামে আরেক কর্মচারী হত্যার ঘটনায় ওই শ্রমিককে প্রধান আসামি করে মামলা দায়েরের ঘটনায় ৯জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে রাজধানীর কদমতলী এলাকার কথা এন্টারপ্রাইজ প্রেস নামের কারখানা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, রূপগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক প্রদ্যুৎ সরকার।  গত বছরের নভেম্বর মাসে উপজেলার বরপা এলাকার বিক্রমপুর স্টিল মিলের সামনে থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় রাজধানীর কদমতলী এলাকার কথা এন্টারপ্রাইজ প্রেসের কর্মচারী ইকবাল হোসেনের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে রূপগঞ্জ থানা পুলিশ। লাশ উদ্ধারের পর ইকবালের পরিবারের পক্ষ থেকে রূপগঞ্জ থানায় অপমৃত্যু মামলা করা হয়। প্রায় তিন মাস পর পাওয়া ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে হত্যার আলামত পাওয়ায় গত রবিবার অপমৃত্যুর মামলাটি হত্যা মামলায় রুজু করা হয়। মামলার বাদী হন নিহত ইকবাল হোসেনের স্ত্রী পারভীন বেগম। অভিযোগ, ওই প্রেসের মালিক ও কয়েকজন কর্মচারী তাকে হত্যা করে উল্টো তার নামেই সোহেল মিয়া নামে আরেক কর্মচারী হত্যার ঘটনায় কদমতলী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে। ঘটনাটি চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। টাঙ্গাইল জেলার নাগেরপুর থানার ঘুনিপাড়া এলাকার ইকবাল হোসেন দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর শনিআখড়ার কদমতলীর ইমরান মিয়ার মালিকানাধীন কথা এন্টারপ্রাইজ প্রেসে কর্মরত ছিলেন। মামলার বাদী পারভীন আক্তার জানান, গত বছরের ৬ নভেম্বর কথা প্রেসের কর্মচারী হাসান মিয়া ও জনি মিয়া মোবাইল ফোনে তাকে জানায়, তার স্বামী ইকবাল হোসেন একই প্রেসের কর্মচারী সোহেল মিয়াকে কারখানায় হত্যার উদ্দেশ্যে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে পালিয়ে যায়। পরে সোহেল মিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় ইকবাল হোসেন হত্যাকান্ডের মামলার আসামি পক্ষ নিহত সোহেলের বড় ভাই সাইদুল ইসলামকে বাদী হয়ে ইকবাল হোসেনকে প্রধান আসামি করে কদমতলী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর