শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:১৮

পোড়া রোগী ১০ দিন রেখে ৮০ হাজার টাকা আদায়!

হাসপাতালে বার্ন ইউনিট নেই

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

পোড়া রোগী ১০ দিন রেখে ৮০ হাজার টাকা আদায়!

মনোয়ারা বেগমের শরীরের ৪৫ ভাগ পুড়ে গেছে। দগদগে শরীর নিয়ে ঘরে ছটফট করছেন তিনি। অভিযোগ উঠেছে, পোড়া রোগীর ভালো চিকিৎসা সেবা না থাকার পরও মনোয়ারাকে ১০ দিন চিকিৎসার নামে ৭০-৮০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় দুটি বেসরকারি হাসপাতাল। পরে গত ৩ ফেব্রুয়ারি রাতে সজ্ঞাহীন অবস্থায় রোগীকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে। মনোয়ারা বেগমের বাড়ি জয়পুরহাট সদর উপজেলার চকশ্যাম গ্রামে। তার স্বামী আবুল হোসেন ভ্যানচালক। অভিযুক্ত হাসপাতালের চিকিৎসক জানান, বার্ন ইউনিট না থাকলেও তারা সাপোর্টিং চিকিৎসা দিয়েছেন। রোগীকে ভালো করার চেষ্টা করেছেন। রোগীর স্বামী জানান, যে ডাক্তার চিকিৎসার নামে ১০ দিন রেখে তার স্ত্রীকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে তাকে শাস্তি দেওয়া হোক। আবুল হোসেন বলেন, গত ২৩ জানুয়ারি রাতে মনোয়ারা চুলায় আগুন পোহানোর সময় দগ্ধ হন। তাকে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে আনা হলে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেলে রিফার্ড করা হয়। পরে সেখান থেকে পরিচিত লোকের পরামর্শে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসা চলে ১০ দিন। এতে খরচ হয় ৭০-৮০ হাজার টাকা। সব টাকা ছিল ধারদেনা ও সাহায্যের। আবারও সাহায্য-সহযোগিতা নিয়ে ৫ ফেব্রুয়ারি রংপুর মেডিকেল ও পরে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। রোগীর অবস্থা খারাপ হওয়ায় গত রবিবার তাকে রিলিজ দেওয়া হয়েছে। এখন তিনি বাড়িতে মৃত্যুর প্রহর গুনছেন।

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর