রবিবার, ২৯ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

পর্যটকে মুখর শ্রীমঙ্গল

দীপংকর ভট্টাচার্য লিটন, শ্রীমঙ্গল

পর্যটকে মুখর শ্রীমঙ্গল

টানা দেড় মাস লকডাউনের পর হাঁফ ছেড়েছেন ভ্রমণ পিপাসুরা। ইট-দালানের ঘর থেকে বেরিয়ে তারা ছুটে আসছেন প্রকৃতির পানে।  ঘুরে বেড়াচ্ছেন এক সাগর থেকে আরেক পাহাড়ে। গত শুক্রবার মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের পর্যটন কেন্দ্রগুলো পর্যটকদের পদভারে মুখরিত হয়ে উঠেছিল। সরেজমিন লাউয়াছড়া, বধ্যভূমি ৭১ ও বিভিন্ন চা- বাগান ঘুরে দেখা যার এমন চিত্র। পরিবার-পরিজনদের সঙ্গে এসেছে শিশু-কিশোররাও। তারা ঘুরে ঘুরে দেখছেন শ্রীমঙ্গলের প্রকৃতিক সৌন্দর্য। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা বিভাগের ডেপুটি ডিরেক্টর আনিছুল আলম জানান, তারা প্রতি বছরই ভ্রমণে বের হন। কিন্তু লকডাউনের কারণে গত দেড় বছর ধরে কোথাও যাওয়া হয়নি। লকডাউন উঠে যাওযায় শ্রীমঙ্গলে এসেছেন। প্রকৃতির সান্নিধ্যে এসে খুব ভালো লাগছে। একই কথা জানালেন ঢাকার খিলগাঁত্ত থেকে আসা ব্যবসায়ী শেখ মোহাম্মদ জিহাদুল ইমান শুভ। তিনি পরিবারের পাঁচ সদস্য নিয়ে এখানে এসেছেন। দুই দিন থেকে এখানকার পর্যটন কেন্দ্রগুলো ঘুরে দেখবেন। পর্যটকরা উপভোগ করছেন চা-বাগানের সৌন্দর্য। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত বধ্যভূমি ৭১। নিচ্ছেন রমেশ রাম গৌড়ের সাত কালারের চায়ের স্বাদ। আর শিশু-কিশোররা ঘুরে ঘুরে দেখছে বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনে চিড়িয়াখানার বন্যপ্রাণী।  লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের বিট কর্মকর্তা মামুনুর রহমান বলেন, গত ২০ আগস্ট থেকে লাউয়াছড়া পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। প্রতিদিনই দেশি-বিদেশি পর্যটকরা উদ্যানে আসছেন। গত সাত দিনে লাউয়াছড়ায় ২ হাজার ৩১৩ জন পর্যটন প্রবেশ করেছেন।  গ্র্যান্ড সেলিম রিসোর্টের মালিক সেলিম আহম্মেদ বলেন, পর্যটকরা আসতে শুরু করেছেন। তার রিসোর্টে ৯০ শতাংশ রুম বুকিং হয়ে গেছে।

এই রকম আরও টপিক