মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০২২ ০০:০০ টা

শিশু নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, দাদি হাজতে

ভোলা প্রতিনিধি

ভোলায় মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে সাত বছরের শিশুকে নির্যাতনের ঘটনায় দাদিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। শিশুটিকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হলে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। ভিকটিমের মায়ের করা মামলায় পুলিশ গত রবিবার দাদিকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে। আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান।

জানা যায়, গত ২৩ জুন বোরহানউদ্দিন উপজেলার দেউলা ইউনিয়নের বড়পাতা গ্রামে সোনিয়া বেগমের মোবাইল ফোন হারায়। ওই মোবাইল চুরির অভিযোগে তার সাত বছর বয়সী নাতনি তানিশাকে মারধর করেন। একপর্যায়ে শিশুটির চুলের মুঠি ধরে ওপরে তুলে মাটিতে আছার মারেন। পরে চুল ধরে কাঁচা রাস্তার ওপর মাটিতে ছেঁচড়িয়ে নিয়ে যান। প্রতিবেশী অপর এক কিশোর নির্যাতনের চিত্র মোবাইল ফোনে ধারণ করে। ৩১ সেকেন্ডের ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে তোলপাড় শুরু হয় এলাকায়। স্থানীয়রা জানান, শিশুটির বাবা হারুন হাওলাদার ও মা মনোয়ারা বেগম। ছয় বছর আগে মা-বাবার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। বাবা হারুন দ্বিতীয় বিয়ে করেন। মায়েরও অন্যত্র বিয়ে হয়ে যায়। শিশু তানিশা নানা-নানির কাছে থাকে। সম্প্রতি তানিশাকে দাদার বাড়ি নিয়ে আসা হয়। ২৩ জুন দাদির মোবাইল ফোন হারায়। ওই ফোন তানিশা চুরি করেছে এমন অভিযোগে দাদি তাকে মারধর করে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখেন। পরে স্থানীয়রা শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। বোরহানউদ্দিন থানার ওসি শাহীন ফকির বলেন, এ ঘটনায় শিশুর মায়ের করা মামলায় গত রবিবার দাদি সোনিয়া বেগমকে গ্রেফতার করা হয়। তাকে আদালতে তোলা হলে বিচারক কারাগারে পাঠান।

 

সর্বশেষ খবর