Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ জুন, ২০১৯ ১৬:৪৬

রাঙামাটি বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হত্যা

চার মাসেও ধরা পরেনি আসামি, আন্দোলনের হুমকি নেতাকর্মীদের

ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি

চার মাসেও ধরা পরেনি আসামি, আন্দোলনের হুমকি নেতাকর্মীদের

দীর্ঘ ৪ মাসেও ধরা পরেনি বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার হত্যাকারীরা। তাই তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের মধ্যে। এ হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচার না হলে হরতাল ও অবরোধসহ আরও কঠোর আন্দোলনে নামার হুমকি দিয়েছেন রাঙামাটি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার বিলাইছড়িতে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আয়োজিত সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে এক প্রতিবাদ সভা ও সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। 

বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অংসাখ্যই মারমা বলেন, বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার হত্যাকাণ্ডের পর তার স্ত্রী বাদি হয়ে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) স্থানীয় সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান শুভমঙ্গল চাকমাকে প্রধান আসামি করে ২০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। তাদের মধ্যে ১২ জনের নাম উল্লেখ করা হলেও ধরা পরেছিল মাত্র একজন। কিন্তু বাকিরা এখনো ধরা ছোয়ার বাইরে। এতে হতাশ তার পরিবারসহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। 

এ হত্যার বিচার না হলে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের দৌরাত্ম আরও বৃদ্ধি পাবে মন্তব্য করে তারা বলেন, ওই সন্ত্রাসীদের বন্দুকের গুলিতে মরতে হবে অসহায় সাধারণ মানুষদের। সরকারের পক্ষ থেকে এসব সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠিন প্রদক্ষেপ গ্রহণ করার এখনই সময়। 

এসময় নিহত সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে নিরুপম তঞ্চঙ্গ্যা অভিযোগ করে বলেন, আমরা আশা করেছিলাম এ হত্যাকারীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে। কিন্তু চার মাস হতে চলেছে কিন্তু এখনো কোনো কুলকিনারা হয়নি। এখনো পর্যন্ত ধরা পরেনি মূল আসামিদের কেউ। জানিনা আদৌ আর কোনো আসামি ধরা পরবে কিনা। এসব সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের কাছে আমি আমরা কেউ নিরাপদ নয়। তাদের সশস্ত্র সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ না হলে পাহাড়ে বসবাস করা সম্ভব হবে না। 

এই প্রতিবাদ সভা ও সংবাদ সম্মেলনে বিলাইছড়ি আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জয়সেন তঞ্চঙ্গ্যা, সহ-সভাপতি সুকুমার চক্রবতী, সাধারণ সম্পাদক এসএম শহিদুল ইসলাম, নিহত সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যার পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৯ মার্চ বিলাইছড়ির ফারুয়া উড়াইছড়ি এলাকার নিজ বাড়ি থেকে ইঞ্জিনবোটে করে উপজেলা সদরে যাচ্ছিলেন সুরেশ কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা। পথে কাপ্তাই লেকে বোট থামিয়ে নিজ স্ত্রী ও তার পুত্র নিরুপম তঞ্চঙ্গ্যার সামনে সুরেশকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা করে একটি আঞ্চলিক দলের সশস্ত্র ক্যাডাররা।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য