শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৩:০৮
প্রিন্ট করুন printer

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ট্রাক চাপায় বৃদ্ধ নিহত

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ট্রাক চাপায় বৃদ্ধ নিহত

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে বেপরোয়া ট্রাক চাপায় মিয়া উদ্দিন নামে ৮০ বছরের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন।

রবিবার সকালে উপজেলার শুকনাকড়িতে দুই ট্রাকের পাল্লায় নিচে চাপা পড়ে নিহত হন এই বৃদ্ধ।

নিহত মিয়া উদ্দিন উপজেলার কাকৈরগড়া ইউনিয়নের বাউরতলা গ্রামের মৃত হামেল আলী তালুকদার ছেলে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সকালে বাজার থেকে চা খেয়ে বাড়ি ফিরছিলেন মিয়া উদ্দিন। পথে বেপরোয়া গতির দুই ট্রাক একটি আরেকটিকে অভারটেকিংয়ের চেষ্টা করে। এই সময় পথচারী মিয়া উদ্দিন সড়ক পার হতে গেলে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয়রা দ্রুত ছুটে আসলে ঘাতক ট্রাক পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে পুলিশ উপ-পরিদর্শক আসাদুর জামান আসাদ জানান, পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হয়েছে। ঘাতক ট্রাক আটকের অভিযান অব্যাহত আছে।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:০৬
প্রিন্ট করুন printer

পাবনায় দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, আহত ১০

পাবনা প্রতিনিধি

পাবনায় দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষ, আহত ১০

পাবনা পৌরসভা নির্বাচনে ১১ নম্বর ওয়ার্ডের দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার বিকেলে রাধানগর মক্তব পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে পুনরায় সংঘর্ষের আশঙ্কায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে পৌরসভা নির্বাচনে ১১ নম্বর ওয়ার্ডে উটপাখি প্রতীকের প্রার্থী ও বর্তমান কাউন্সিলর ফরিদুল ইসলাম ডালুর পক্ষে মিছিল বের করেন তার সমর্থক কয়েকশ নারী-পুরুষ। এ সময় একই ওয়ার্ডের প্রতিদ্বন্দ্বি পাঞ্জাবী প্রতীকের প্রার্থী সানাউল হক সানুর সমর্থকদের সাথে সংঘর্ষ হয়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলে মিছিল বের করেন ডালুর সমর্থকরা।

কিছুক্ষণ পর পুলিশি পাহারায় কাউন্সিলর প্রার্থী ডালুর সমর্থকরা মিছিল নিয়ে মক্তব মোড় এলাকায় এলে সানুর সমর্থকদের সাথে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় গোটা এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এ সময় কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। 

প্রার্থী ফরিদুল ইসলাম ডালু বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে আমার নারী সমর্থকদের মিছিল ও গণসংযোগের কর্মসূচি ছিল। হঠাৎ করেই সানাউল হক সানুর ছেলে তুহিনের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক এসে মিছিল বের করতে বাধা দেয়। আমার সমর্থকরা প্রতিবাদ জানালে তারা নির্মমভাবে আমার সমর্থকদের পেটায়। আমি তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ আসার পর তার পালিয়ে যায়। পরে মক্তব মোড় এলাকায় তারা আবারো মিছিলে হামলা করে। 

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে পাঞ্জাবী প্রতীকের প্রার্থী সানাউল হক বলেন, ফরিদুল ইসলাম ডালু নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনে সংঘাতের পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ভোটারদের মধ্যে ভয়ভীতি ও আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা করছেন। মিথ্যা রটনা করে তার সমর্থক আমার ছেলে তুহিনকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছে। সে হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

পাবনা সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রওশন আলী জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়েই আমরা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছি। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। উভয়পক্ষকে সংঘর্ষে না জড়াতে সতর্ক করেছি।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:০৪
প্রিন্ট করুন printer

কনকনে ঠাণ্ডায় আবারও জবুথুবু কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কনকনে ঠাণ্ডায় আবারও জবুথুবু কুড়িগ্রাম

শীত ও কনকনে ঠাণ্ডায় ফের কাবু হয়ে পড়েছে উত্তরের জনপদ কুড়িগ্রাম। মঙ্গলবার পুরো দিন কেটে গেলেও সূর্যের দেখা মেলেনি। সেই সাথে উত্তরীয় হিমেল হাওয়া বাড়িয়ে দিয়েছে ঠাণ্ডার মাত্রা। এ অবস্থায় ব্যাহত হয়ে পড়েছে স্বাভাবিক জীবন যাত্রা।

এর আগে গত তিনদিন ধরে দিনের বেলা সূর্যের দেখা মিললেও রাত ৮ টার পর ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছিল প্রকৃতি এবং তা অব্যাহত ছিল সকাল ১০টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত। কিন্তু মঙ্গলবার দিনভর সূর্যের দেখা পাননি এ জনপদের মানুষ। কুয়াশায় ঢেকে গেছে গোটা অঞ্চল।

স্থানীয় আবহাওয়া অফিসের কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ সুবল চন্দ্র সরকার জানান, মঙ্গলবার জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস।তিনি বলেন,মৃদু শৈত্য প্রবাহ আবারো শুরু হয়েছে। 

এদিকে, ঠাণ্ডার মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় সবচেয়ে বিপাকে পড়েছেন জেলার কৃষি শ্রমিকরা। বোরো চাষের ভরা মৌসুম চললেও কনকনে ঠাণ্ডায় শ্রমিকরা ঠিকমত মাঠে কাজ করতে না পারায় ব্যাহত হয়ে পড়েছে বোরো আবাদ। কনকনে ঠাণ্ডায় গরম কাপড়ের অভাবে দুর্ভোগ বেড়েছে ছিন্নমূল, হতদরিদ্র পরিবারের শিশু ও বৃদ্ধরা।

রাজারহাট উপজেলার উমরমজিদ ইউনিয়নের কৃষি শ্রমিক মজনু মিয়া বলেন, এরকম ঠাণ্ডায় এমনিতেই হাত-পা বাইরে রাখা মুশকিল হয়ে পড়েছে। তার উপর পানিতে নেমে রোয়া লাগানো খুবই কঠিন হয়ে পড়েছে। হলোখানা ভেরভেরির রিকশাচালক সফিকুল জানায়, ‘কনকনে ঠান্ডাত কতক্ষণ এস্কা চালান ভাই। শিরশির বাতাস জামা-কাপড় ছেদ করি ঢুকে। ঠান্ডাত টেকা যায়না।’

অন্যদিকে অবিরাম গত দুই সপ্তাহেরও বেশি ঠাণ্ডা ও শীতে জেলার হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে শীত জনিত রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। বিশেষ করে শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে ডায়রিয়া, নিউমোনিয়া, শ্বাসকষ্টসহ নানা শীত জনিত রোগে। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

ঠাকুরগাঁওয়ে আধুনিক পদ্ধুতিতে ধানের চারা রোপণ

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ে আধুনিক পদ্ধুতিতে ধানের চারা রোপণ

ঠাকুরগাঁও রাণীশংকৈল উপজেলার নেকমরদ করনাইট দীঘিয়া গ্রামে আজ মঙ্গলবার দুপুরে ১৪ জন কৃষকের ১৫০ বিঘা জমিতে ট্রান্স প্লান্টার মেশিনের দ্বারা ধানের চারা রোপণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক ড. কে এম কামরুজ্জামান সেলিম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক আফতাব হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহরিয়ার আজম মুন্না, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক, কৃষি অফিসের বিভিন্ন কর্মকর্তাসহ দুই শতাধিক কৃষক। 

এসময় বক্তারা জানান, প্রান্তিক কৃষকদের লাভবান করে তুলতে এবং সরকারের এই মহৎ উদ্যোগকে এগিয়ে নিতে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন বিভিন্ন কৃষি প্রদর্শনীর মাধ্যমে। 

প্রণোদনা হিসেবে চারা রোপণ থেকে ধান কাটা পর্যন্ত ১২ লক্ষ ২১ হাজার টাকা ব্যয় করা হবে। মোট বরাদ্দের একর প্রতি কৃষকের জমিতে ১০০ কেজি ইউরিয়া, ৪৫ কেজি ডেপ, ৫০ কেজি পটাশ, ৪৫ কেজি জিপসাম ও ৪ কেজি দস্তা সার বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:৫০
প্রিন্ট করুন printer

মাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

মাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা!
ফাইল ছবি

বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় ঘেরে বিষ প্রয়োগ করে ব্যবসায়ী রতন হালদারের মাছ মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের মৈস্তারকান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ঘের মালিক রতন হালদার জানান, মঙ্গলবার সকালে মাছের ঘেরে খাবার দিতে গিয়ে দেখেন বিভিন্ন প্রজাতির মাছ মরে ভেসে উঠেছে। প্রতিপক্ষের লোকজন বিষ দিয়ে ঘেরের মাছ হত্যা করতে পারে বলে সন্দেহ করছেন তিনি।

ঘেরে বিষ প্রয়োগে তার লক্ষাধিক টাকা মূল্যের মাছ মারা গেছে। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে বলেও জানান ভুক্তভোগী ঘের মালিক।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আফজাল হোসেন বলেন, তদন্ত করে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:৪৪
প্রিন্ট করুন printer

ছেলে দেখলো ডোবায় ভাসছে বাবার মরদেহ

কুমিল্লা প্রতিনিধি:

ছেলে দেখলো ডোবায় ভাসছে বাবার মরদেহ

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে খুঁজতে গিয়ে ছেলে দেখলো ডোবায় ভাসছে বাবা শাহ আলমের (৫৫) মরদেহ। পেশায় কারখানা শ্রমিকের শাহ আলমের মরদেহ ডোবা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে উপজেলার বারপাড়া ইউনিয়নের মারকাজ মসজিদের পাশের একটি ডোবা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। নিহত শাহ আলম উপজেলার কানড়া গ্রামের সুনো মিয়ার ছেলে। তিনি স্থানীয় শহীদনগর সোনালি আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজের শ্রমিক ছিলেন।  

নিহতের ছেলে শাহেদ জানান, জরুরি কাজে ছবি তোলার জন্য তাঁর বাবা সোমবার সন্ধ্যায় ঘর থেকে বের হন। রাতে তিনি বাড়ি ফেরেননি। পরে পরিবারের সদস্যরা রাতভর বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেন। সকালে শাহেদ বাবার খোঁজে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশ দিয়ে হেঁটে বাবার কর্মস্থল শহীদনগর সোনালি আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজে যাচ্ছিলেন। শাহেদ তার বাবার লাশ সড়কের পাশের ডোবার পানিতে দেখে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ ফোন করেন। দাউদকান্দি মডেল থানা ও হাইওয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।  

দাউদকান্দি মডেল থানার ওসি মো.নজরুল ইসলাম জানান, নিহতের মাথার পেছনে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি এটি হত্যাকাণ্ড। তবে  ময়নাতদন্তের পর এ বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।  

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর