শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১৭:৪৭
আপডেট : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ১৮:২৪

বাল্য বিয়ে বন্ধে একযোগে কাজ করতে হবে: স্পিকার

মাদারীপুর প্রতিনিধি

বাল্য বিয়ে বন্ধে একযোগে কাজ করতে হবে: স্পিকার

জাতীয় সংদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, সমাজ থেকে বাল্য বিবাহ বন্ধ করতে হলে প্রত্যেক শ্রেণি-পেশার মানুষকে এক যোগে কাজ করতে হবে। অবিভাবকদের সচেতন করতে পারলে এটি অনেকটাই প্রতিরোধ করা যাবে। তিনি বলেন, দেশ এখন এগিয়ে যাচ্ছে। তাই মেয়েরা এখন পিছিয়ে থাকতে পারে না। এক কোটি শিক্ষার্থীর হাতে উপ-বৃত্তির টাকা মোবাইলের মাধ্যমে তাদের মা-বাবার কাছে পৌঁছে যাচ্ছে। এ সুযোগ যেন আমরা কাজে লাগাই। কারণ সরকার ছেলেমেয়েদের জন্য এ সুযোগ সৃষ্টি করেছে। 
শনিবার দুপুরে জাতীয় সংসদের উদ্যোগে মাদারীপুরের শিবচর চৌধুরী ফাতেমা বেগম পৌর অডিটরিয়ামে আয়োজিত ‘বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ পূর্বক মাতৃমৃত্যু হ্রাসকরণ পরামর্শ কর্মশালা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 
স্পিকার বলেন, সরকার শুধু মেয়েদেরই জন্যই নয়, ছেলেদের জন্যও বৃত্তির ব্যবস্থা করছে। আর ইংরেজী বছরের প্রথম দিনেই ৩৫ কোটি নতুন বই পৌঁছে যাচ্ছে শিক্ষার্থীদের হাতে। সমাজ থেকে ইভটিটিজিং বন্ধ করতে হবে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপি। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান। এছাড়া জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো, ইউএনএফপিএর প্রতিনিধি ড. আশা টর্ককেলসন। আরো  উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের সাবেক চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এমপি, ক্যাপ্টেন তাজুল ইসলাম এমপি, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপি, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু এমপি, জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ এমপি, সাবেক মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপি, মো. নজরুল ইসলাম বাবু এমপি, প্রফেসর ড. হাবিবে মিল্লাত এমপি, মো. ফকরুল ইসলাম এমপি, নাহিদ ইজহার খান এমপি, রাজি মো ফকরুল এমপি, সুবর্না মোস্তফা এমপি, অপরাজিতা হক এমপি, শবনাম বেগম এমপি, আদিবা আনজুম মিতা এমপি প্রমুখ। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মুনির চৌধুরী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মিয়াজ উদ্দিন খান, মাদারীপুরের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক  আজাহারুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মাহাবুব হাসান প্রমুখ।
ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী আরো বলেন- নিজস্ব অর্থায়নে সরকার পদ্মা সেতু নির্মাণ করছে। এখন সেতু বাস্তবে রূপ দিচ্ছে। এটি এখন আর স্বপ্ন নয়। মানুষের অকল্পনীয় পদ্মা সেতু করতে পারছে এ সরকার। তাই যে  কোন বিষয়ে সর্বাত্মকভাবে কাজ করলে অবশ্যই সফল করতে পারবে সরকার। আজ শিবচর আসার পথে যে বিষয়টি আমাদের সবার দৃষ্টি কেড়েছে, সেটা হচ্ছে পদ্মা সেতু বিনির্মাণ। বিশ্বকে তাক লাগিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু নির্মাণ করছেন। পদ্মা সেতুর কাজ এগিয়ে চলছে। এই পদ্মা সেতু যে বাংলাদেশ নির্মাণ করতে পারে, যে কোন পরিবর্তন বাংলাদেশ করতে পারে, সেই বিশ্বাস, সেই আত্মশক্তি আমাদের আছে। এই আত্মশক্তি যিনি আমাদের দিয়ে গেছেন তিনি আর কেউ নন। তিনি  সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। 
জাতীয় সংসদের এই প্রতিনিধি দল সকালে জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর বাবা মুজিব বাহিনীর কোষাধ্যক্ষ, সাবেক এমপি মরহুম ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর নিজ বাড়ি দত্তপাড়ায় মরহুমের কবর জিয়ারত করে। পরে বিকেলে ফিরোজা বেগম শিল্পকলা একাডেমিতে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য