শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জানুয়ারি, ২০২০ ২০:০৭

দিনাজপুরে ফের বেড়েছে শীতের প্রকোপ

দিনাজপুর প্রতিনিধি:

দিনাজপুরে ফের বেড়েছে শীতের প্রকোপ

দিনাজপুরে প্রথম দফা শৈত্যপ্রবাহের পর গত কয়েকদিনে তাপমাত্রা বেড়েছিল কিছুটা, তবে সোমবার হঠাৎ শীতের মাঝে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে জনজীবনে নেমে আসে ভোগান্তি। এরপর থেকে দিনাজপুরে ফের শীত বাড়তে শুরু করে। 

ঘন কুয়াশার কারণে যানবাহন চলাচল করছে হেডলাইট জ্বালিয়ে। হিমেল হাওয়ায় হাড়-কাপুনি শীতের ফলে বিপাকে পড়ছেন খেটে খাওয়া মানুষ। মঙ্গলবার সকাল থেকেই শীতের প্রকোপ অনুভূত হচ্ছে। সেই সঙ্গে উত্তরের হিমেল হাওয়ার কারণে শীতের তীব্রতা আরও বেড়েছে। 

শীতের তীব্রতা বাড়ায় সড়কে মানুষের চলাচল খানিকটা কমে গেছে। এতে রোজগার কমে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন রিকশা ও ভ্যানচালকরা। 

এদিকে, শৈত্য প্রবাহ, অবিরাম ঘন কুয়াশা ও হিমেল হাওয়ায় বীজতলায় দেখা দিয়েছে ফ্যাকাসে রং। বিকেল গড়াতেই তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশা অব্যাহত থাকায় কৃষি প্রধান দিনাজপুরে বোরো ধানের বীজতলা নষ্ট হওয়ার উপক্রম হওয়ায় দুশ্চিন্তায় বোরো চাষিরা।

হিলি বাজারের নৈশপ্রহরী কোরবান আলী জানান, কয়েকদিন আবহাওয়া ভালোই ছিল, গরম পড়তে শুরু করেছিল। কিন্তু হঠাৎ করে বেশ কুয়াশা আর ঠান্ডা বাতাস হওয়ায় আবার নতুন করে শীত পড়তে শুরু করেছে। সকাল থেকে বাতাস বইছে। শীতের কারণে কাজও ঠিকমতো করা যাচ্ছে না।

ভ্যানচালক মুশফিকুর ইসলাম বলেন, কয়েকদিন রোদ থাকায় বাজারে আয় রোজগার ছিল ভালো। কিন্তু আবার শীত পড়ার কারণে লোকজন তেমন বের হচ্ছে না, ফলে যাত্রীও তেমন একটা পাওয়া না, রোজগার কমে গেছে। শীতের কারণে ভ্যান চালাতেও সমস্যা হচ্ছে, হাত-পা শিক লাগার মতো হয়ে যাচ্ছে।

দিনাজপুর আবহাওয়া অধিদফতরের ইনচার্জ তোফাজ্জল হোসেন জানান, মঙ্গলবার দিনাজপুরের সর্বনিন্ম তাপমাত্রা ছিল ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তাপমাত্রা আরও কমতে পারে, রংপুর অঞ্চলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। রাতের তাপমাত্রা কমে ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নামার সম্ভাবনা রয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য