শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ জুলাই, ২০২০ ১৭:০৩

জলাতঙ্ক রোগের ভ্যাকসিন নেই সখীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

সখীপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি:

জলাতঙ্ক রোগের ভ্যাকসিন নেই সখীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

টাঙ্গাইলের সখীপুরে প্রতিদিন কুকুড়, বিড়াল ও শিয়ালের কামড় কিংবা আচড়ে আহত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। এ কারণে জলাতঙ্ক রোগের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এ রোগের কোনো ভ্যাকসিন নেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। তাই ভোগান্তি বেড়েছে এ উপজেলার মানুষের।

সখীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, সখীপুর তথা পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন গ্রাম থেকে প্রতিদিনই সাপে কাটা, কুকুড়, বিড়াল ও শিয়ালের কামড়ে অহত হয়ে মানুষজন হাসপাতালে আসে। প্রয়োজনীয় ভ্যাকসিন না থাকায় তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হয়। টাঙ্গাইলের কোন উপজেলাতেই কুকুড়, বিড়াল ও শিয়ালে কামড়ানো রোগীর চিকিৎসা দেয়া হয় না। সাপে কাটা রোগীকে পাঠানো হয় ময়মমসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

ভুক্তভোগীরা জানান সখীপুরের অনেক ফার্মেসীতে এ ভ্যাকসিন কিনতে পাওয়া যায় কিন্তু দাম অনেক বেশি। প্রতিটি ভ্যাকসিনের মূল্য সর্ব নিম্ন পাঁচশত টাকা। শিয়াল, কুকুড়ে বা বিড়ালে কামড়ালে একজন রোগীকে পাঁচটি ভ্যাকসিন দিতে হয়। যা একজন দরিদ্র রোগীর পক্ষে এ চিকিৎসা ব্যায় বহন করা সম্ভব হয়ে উঠেনা। 

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিবার কল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আব্দুস সোবহান বলেন, শিয়াল, কুকুড় ও বিড়লের কামড়ে চিকিৎসা না নিলে জলাতঙ্ক হয় আর জলাতঙ্ক হলে নিশ্চিত মৃত্যু। এই ভ্যাকসিনগুলো নির্দিষ্ট পরিমান তাপমাত্রায় রাখতে হয়। না হলে ভ্যাকসিন নষ্ট হয়ে যায়।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল সিভিল সার্জন ডা. মো. ওয়াহীদুজ্জামান বলেন, এই সেবাটি জনগণের হাতের কাছে পৌঁছে দিতে পারলে আমরাও খুশি। দুঃখের বিষয় টাঙ্গাইলের কোন উপজেলাতেই এ চিকিৎসা নেই। যে সব উপজেলায় বেশি আক্রান্ত হয় তার একটি তালিকা নিয়ে ওই উপজেলায় এই ভ্যাকসিন দেয়ার ব্যবস্থা করবো। 

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর