শিরোনাম
প্রকাশ : ১০ জুলাই, ২০২০ ১৭:৫৯

দিনাজপুরে করোনা জয় করে বাড়ি ফিরলেন আরও ১২ জন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরে করোনা জয় করে বাড়ি ফিরলেন আরও ১২ জন

দিনাজপুরের খানসামায় সাংবাদিক ও রাজনীতিবিদসহ করোনা জয় করে আইসোলেশন থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন আরও ১২ জন। এর আগে ২২ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন। এ নিয়ে উপজেলায় মোট করোনা আক্রান্ত ৪১ জন রোগীর মধ্যে এযাবত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন ৩৪ জন ও মারা গেছেন ১ জন। এছাড়াও বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছে ৬ জন করোনা রোগী।

করোনাজয়ীরা হলেন, খানসামা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ ও আঙ্গারপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক ধীমান দাস (৪৫), আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ আঃ মোমেন শাহ্ (৬০), ভাবকি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ. মান্নান (৫৮), স্বাস্থ্য কর্মী আগ্রা গ্রামের মোহাম্মদ আলী (৪৭), গোবিন্দপুর গ্রামের শফিকুল ইসলাম, নলবাড়ি গ্রামের নুর মোহাম্মদ (২৫), গারপাড়া গ্রামের কাজল (৩০), হাসিমপুর গ্রামের মোস্তাকিম (২২), গোয়ালডিহি গ্রামের আনোয়ার হোসেন (২৮), পাকেরহাট গ্রামের আশা আক্তার (১৭), আলতাব হোসেন (৩০) ও মুজিবুল ইসলাম (২২)। তারা সকলেই নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে ছিলেন।

শুক্রবার সকাল ১১টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চত্বরে উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে তাদের পুষ্টিসমৃদ্ধ খাদ্য উপহার ও সুস্থ হয়ে বাড়ি যাওয়ার ছাড়পত্র প্রদান করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা.শামসুদ্দোহা মুকুল, করোনা রোগীর চিকিৎসা সংক্রান্ত মেডিকেল টিমের টিমলিডার ডা. ফারুক আহমেদ রিজওয়ান, ওসি শেখ কামাল হোসেন, পিআইও মাজহারুল ইসলাম, আংগারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা আহমেদ শাহ, ইউপি সদস্য শাহজাহান পাটোয়ারি প্রমুখ।

করোনা থেকে মুক্তি পাওয়া আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ আ. মোমেন শাহ, সাংবাদিক ধীমান দাসসহ অনেকে বলেন, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই চিকিৎসকের বিধিবিধান মেনে চলেছি। প্রতিনিয়তই ইউএনও, স্বাস্থ্য বিভাগ ও ইউপি চেয়ারম্যান খোঁজ-খবর নিয়েছেন। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম বলেন, করোনা রোগীদের উৎসাহ ও সাহস যোগাতে ফলমূল ও পুষ্টিসমৃদ্ধ খাদ্য উপহার নিয়ে পুলিশ, চিকিৎসক, ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য, গ্রামপুলিশ, আনসারদের সাথে করে তাদের বাড়িতে খোঁজ-খবর নিয়েছি। যেন তাদের মনোবল ভাল থাকে। এছাড়াও প্রতিনিয়ত মুঠোফোনে খোঁজ-খবর নিয়েছি। এ ধরনের কার্যক্রম আগামীতে অব্যাহত রাখার চেষ্টা করব।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর